অন্যায় করলে সরকারি কর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবঃ মমতা

38

কার্ত্তিক গুহ, পশ্চিম মেদিনীপুর: গোটা বাংলা জুড়ে এনআরসি আতঙ্ক। জেলা থেকে শহর কলকাতায় ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ছে আতঙ্ক। আর সেই আতঙ্কে সকাল থেকে জেলার বিভিন্ন প্রশাসনিক ভবন থেকে পুরসভা অফিসগুলিতে ভিড় জমাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। জন্ম নিয়ন্ত্রণ শংসাপত্র সহ বিভিন্ন তথ্য তুলতে যত দিন এগোচ্ছে তত ভিড় বাড়ছে। ভিড় সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে সরকারি আধিকারিকদের। এই অবস্থায় সাধারণ মানুষের স্বস্তি দিয়ে বড় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নতুন ডিজিটাল রেশন কার্ড তৈরি এবং রেশন কার্ডে ভুল সংশোধনের জন্যে সময়সীমা বাড়ানোর নির্দেশ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। পুজোর পরে নতুন করে ফের কার্ড তৈরির দিন ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী ৫ নভেম্বর থেকে ফের নতুন কার্ড তৈরি করা যাবে বলে এদিন ঘোষণাতে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ডিজিটাল রেশন কার্ড তৈরি ও রেশন কার্ডে ভুল সংশোধনের জন্য সময়সীমা একমাস বাড়ানো হয়েছে। আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে এই সময়সীমা। আজ বুধবার পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরায় প্রশাসনিক বৈঠক থেকে নতুন ডিজিটাল রেশন কার্ড তৈরি এবং রেশন কার্ডে ভুল সংশোধনের জন্যে বর্ধিত এই সময়সীমার ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন পশ্চিম  মেদিনীপুরের বৈঠক থেকে প্রশাসনিক কর্তাদের রীতিমতো এক হাত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। পরিসংখ্যান দিয়ে তিনি দেখান অন্যান্য জেলার তুলনায় এই জেলার একাধিক প্রশাসনিক দফতরের বিরুদ্ধে অনেক বেশি অভিযোগ জমা পড়েছে। যা নিয়ে প্রকাশ্যেই উষ্মা প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী। কেন এই পরিস্থিতি দফতর ধরে তার কৈফিয়তও তলব করতে দেখা যায় তাঁকে।

মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, ‘পূর্ত দফতরের কাজে গাফিলতি রয়েছে। ৭০৬ টি অভিযোগ পেয়েছি। রক্ষণা-বেক্ষণের কাজে গাফিলতি থাকছে কেন ?’ এরপরই সরাসরি হুঁশিয়ারি দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘দলের লোকেরা দোষ করলে ব্যবস্থা নেওয়া হয়। এবার সরকারি কর্মীদের ক্ষেত্রেও ব্যবস্থা নেব।’

শুধু ঝাড়গ্রামই নয়, ঘাটাল, পাঁশকুড়া, পিংলা, কেশিপুর, সবং-এ পুলিশ ঠিকভাবে কাজ করছে না বলেই অভিযোগ করেন মুখ্যমন্ত্রী। উল্লেখ্য, গত লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের মধ্যে দক্ষিণবঙ্গে সবচেয়ে খারাপ ফলে যে কটি জেলার মধ্যে শাসক দলের হয়েছে, তার মধ্যে পশ্চিম মেদিনীপুর অন্যতম। এদিন বৈঠক শুরু প্রথম থেকেই কার্যত রুদ্রমূর্তিতেই ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। শুধু পুলিশই নয় প্রশাসনের কর্তাদেরও তাঁর তোপের মুখে পড়তে হয়।