ক্ষমতা থাকলে দিল্লিতে গিয়ে ধর্মঘট করুন,বাংলা শান্তির জায়গাঃ হুংকার মমতার

163

ওয়েব ডেস্ক, ৮ জানুয়ারিঃ বুধবারের বাম ও কংগ্রেস ধর্মঘটকে নিজেদের সস্তার প্রচার বলেই আক্রমণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ধর্মঘট সমর্থকরা কোথাও বাস-অটো ভাঙচুর করেছে, কোথাও পুলিশ গাড়িতে হামলা চালিয়েছে, কোথাও আবার ট্রেন লাইনের উপর বোমা রেখেছে। শুধু বারাসতেই ৩ জায়গা থেকে উদ্ধার হয়েছে বোমা। বাম-কংগ্রেস কর্মীসমর্থকদের এই আচরণে রীতিমতো ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন দুপুর সাড়ে বারোটা নাগাদ সাগর ছাড়ার আগে সাংবাদিকদের একথাই বলেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এই ধর্মঘট কোনও সমাধান নয়। আমি এই ইস্যু সমর্থন করি। কিন্তু এভাবে গুণ্ডামি করে ধর্মঘটের পক্ষে নয়। এটা সস্তার পাবলিসিটি। এর চেয়ে রাজনৈতিক মৃত্যু হওয়া ঢের ভাল।’ ধর্মঘটীদের পক্ষে তাঁর হুঁশিয়ারি, ক্ষমতা থাকলে দিল্লিতে গিয়ে ধর্মঘট করে দেখান। বাংলায় শান্তি রয়েছে, তাই জোর করে ঝামেলা করা হচ্ছে।

বামেদের তোপ দেগে মমতা আরও বলেন, ‘এর চেয়ে কেরালার সিপিএম ভাল। ওঁদের একটা নীতি আছে। এঁদের তো কোনও নীতিই নেই। ৩৪ বছর ধরে এই ভাঙচুরের রাজনীতি করেছে। এখনও সেটাই করছে। এভাবে চলবে না।’

এদিন স্পষ্টই মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, এই ধরনের ঘটনার বিরুদ্ধে পুলিশ-প্রশাসন কড়া ব্যবস্থা নেবে। যেভাবে আইনানুগ ব্যাবস্থা নেওয়া হয় সেভাবেই নেওয়া হবে। তিনি বলেন, ‘এই রাজ্যে সরকার, শাসক দল-সহ সকলেই এই ইস্যুকে সমর্থন করছে। কেন তারপরেও এই গুণ্ডামি। কেন এই ধর্মঘট। সেটাই বোধগম্য নয়।’

উল্লেখ্য,রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই কর্মসংস্কৃতি ফেরাতে উদ্যোগ নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। কোনও ইস্যুতে কোনও বন্‌ধই তিনি সমর্থন করেন না। কোনও রাজনৈতিক দল বনধ ডাকলে রীতিমতো বিজ্ঞপ্তি দিয়ে তার প্রতিবাদ করেন মুখ্যমন্ত্রী। তৃণমূলের তরফেও বনধের বিরোধিতায় আলাদা করে উদ্যোগ নেওয়া হয়। এবারেও তার ব্যতিক্রম হয়নি।