ভারতে থাকতে হলে ‘ভারত মাতা কি জয়’ বলতেই হবে হুঁশিয়ারি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

325

ওয়েব ডেস্ক, ২৯ ডিসেম্বরঃ ‘ভারত মাতা কি জয়’ যারা বলবে তারাই শুধু ভারতে থাকতে পারবেন।সাফ জানিয়ে দিলেন কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান।পুনেতে অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের ৫৪তম জেলা সম্মেলনে এসে তিনি বলেন, ”ভগত সিং, নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোসের বলিদান ব্যর্থ হতে দেওয়া যাবে না।স্বাধীনতার ৭০ বছর পর কে দেশের নাগরিক আর কে নয়, তা নমিয়ে দ্বন্দ্বে পড়ার কোনও মানে নেই।আমরা এই দেশটাকে ধর্মশালা করে ফেলতে চাই না।এদেশে থাকতে হলে ভারত মাতা কি জয় বলতে হবে।”

পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র এদিন মঞ্চে উঠেই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছিলেন।তিনি বলতে থাকেন, ”অন্য দেশ থেকে এসে এখানে অনেকেই বসবাস শুরু করেছেন।এটা আমাদের কাছে একটা চ্যালেঞ্জ।তবে একটা ব্যাপারে আমাদের সবার মত এক হওয়া উচিত।এই দেশে তাঁরাই থাকতে পারবেন যাঁরা ভারত মাতা কি জয় বলবেন!” দেশজুড়ে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ও প্রস্তাবিত এনআরসির প্রতিবাদে বিক্ষোভ চলছে। দিন যত এগোচ্ছে আন্দোলন ততই তীব্র হচ্ছে।প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলতে হয়েছে, দেশে এনআরসি লাগুর কোনও পরিকল্পনা আপাতত সরকারের নেই।প্রবল বিরোধিতায় মোদী-শাহ জুটির উপর চাপ যে বাড়ছে তা তাঁদের মন্তব্যেই স্পষ্ট।এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর মন্তব্য বিতর্ক ঘি ঢাললো বলেই মনে করা হচ্ছে।

অন্যদিকে, দেশের অর্থনীতি বেহাল।দিন দিন বাড়ছে বেকারত্ব।কর্মসংস্থানে কেন্দ্র কী পদক্ষেপ করছে? এই প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‘শিল্পে প্রযুক্তির ব্যবহারের ফলে চাকরি কমছে।সমস্যা সমাধানে এবিভিপির মত সংগঠনকে দায়িত্ব নিতে হবে’ বলে জানান কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান।

মন্ত্রীর আশা, একবিংশ শতাব্দীতে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে আরএসএসের ছাত্র সংগঠন এবিভিপি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে।মন্ত্রী জানান, ১৯৮৩ থেকে এই ছাত্র সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত তিনি। সংগঠনের জাতীয় সম্পাদকের দায়িত্বেও ছিলেন তিনি।