হরিয়ানায় বিজেপির রাজ্যে সভাপতি সহ ১০ মন্ত্রীর মধ্যে ৮ জনেই পরাস্ত!

519

ওয়েব ডেস্ক, ২৫ অক্টোবর: হারিয়ান বিধানসভা নির্বাচনের এক্সিট পোলে আগাম ভোটের ফলাফল দেখে বেজায় খুশি বিজেপি। কিন্তু গণনার দিন বিকেল গড়তে না গড়তে অস্বস্তিতে পরে বিজেপি। সমস্ত কিছু অনুষ্ঠান বাতিল করে হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী নিয়ে দিল্লিতে এক জরুরি বৈঠক করেন। কিন্তু দলের পর্যালোচনা করতে গিয়ে দেখা যায় ওই রাজ্যের ১০ মন্ত্রীর মধ্যে ৮ জনেই পরাস্ত। কারণে তাদের নিবাচনে লড়াইয়ের পরিকল্পনায় কোথায় ভুল রয়েছে। যারা জয়ী হয়েছে তাদের মার্জিন টাও খুব একটা বেশি না। হরিয়ানা বিধানসভা নির্বাচনে শাসকদল বিজেপি ১০ মন্ত্রীকে এ বার প্রার্থী করেছিলেন। তার মধ্যে মাত্র ২ মন্ত্রী এ বার ভোট বৈতরণী পার হতে পরেছেন। বাকি ৮ জনই পরাস্ত।

এ বারও জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছেন গত পাঁচ বারের বিধায়ক,হরিয়ানা মন্ত্রিসভার অন্যতম সদস্য অনিল ভিজ। বরাবরের মতো আম্বালা ক্যান্টনমেন্ট থেকেই তিনি প্রার্থী হয়েছিলেন। বিজয়ী আর একজন হলেন প্রতিমন্ত্রী ডক্টর বনওয়ারি লাল, বাওয়াল কেন্দ্র থেকে তিনি জয়ী হয়েছেন। 

অনিল ভিজ ২০ হাজারেরও বেশি ভোটে হারিয়েছেন কংগ্রেসের বিদ্রোহী প্রার্থী চিত্রা সারওয়ারাকে। কংগ্রেসের সঙ্গে মনোমালিন্যের জেরে নির্দল প্রার্থী হিসেবে তিনি প্রতিদ্বিন্দ্বিতা করেন। অন্য দিকে, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ডক্টর এমএল রাঙ্গাকে ৩২ হাজারেরও বেশি ভোটে পরাস্ত করে বাওয়াল আসনটি ধরে রাখেন ডক্টর লাল।

বিজেপির পরাজিত মন্ত্রীদের মধ্যে রয়েছেন রামবিলাস শর্মা (মহেন্দ্রগড়), ক্যাপ্টেন অভিমন্যু (নারনৌন্দ), ওমপ্রকাশ ধানকর (বাদলি), কবিতা জৈন (সোনিপত), কৃষ্ণানলাল পানওয়ার(ইসরানা),মনীশকুমার গ্রোভার (রোহতক), কৃষানকুমার বেদি (শাহবাদ) ও করণদেব কামবোজ (রাদাউর)।

গ্রোভার ও কামবোজ নিকটতম প্রতিপক্ষের কাছে হেরেছেন মাত্র দু-হাজার ভোটের ব্যবধানে। বাকি মন্ত্রীরা ১০ হাজারেরও বেশি ভোটে পরাজিত হন। করণদেব কামবোজকে ইন্দ্রি থেকে রাদাউর কেন্দ্রে সরিয়ে এনেছিল রাজ্যের শাসকদল। কিন্তু, বিজেপির সেই কৌশল খাটেনি। গতবারের দুই মন্ত্রী বিপুল গোপাল ও রাও নরবীর সিংকে এবার টিকিটই দেয়নি বিজেপি।

খট্টর মন্ত্রিসভার একমাত্র মহিলা মুখ, তিনবারের বিধায়ক কবিতা জৈন তাঁর সোনিপত কেন্দ্রেই এবার হেরেছেন কংগ্রেসের সুরেন্দর পানওয়ারের কাছে। ৩২ হাজারেরও বেশি ভোটে। শাসকদলের আরও এক উজ্জ্বল মুখ, রাজ্যের সভাপতি সুভাষ বরালাও ভোট বৈতরণি পেরোতে পারেননি। তোহনা আসনে ৫০,৩০২ ভোটে তিনি হেরেছেন জননায়ক জনতা পার্টির প্রার্থী দেবেন্দ্র সিংয়ের কাছে।

প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বীরেন্দ্র সিংয়ের স্ত্রী, বিজেপির প্রার্থী প্রেম লতা হেরেছেন জননায়ক জনতা পার্টিরই দুষ্যন্ত চৌতলার কাছে। উচানা কালান কেন্দ্রে। পরাজয়ের ব্যবধান ৪৭,৪৫২ ভোট। কংগ্রেসের হেভিওয়েট নেতা রণদীপ সিং সুরজেওয়ালাও পরাস্ত হয়েছেন। তাঁকে হারিয়েছেন বিজেপির লীলা রাম। তিন বারের বিধায়ক, কংগ্রেসের মুখপাত্রের হারের ব্যবধান মাত্র ১,২৪৬ ভোট। মাঝে উপনির্বাচনে দাঁড়িয়েও হেরে যান সুরজেওয়ালা। হরিয়ানা বিধানসভার প্রাক্তন স্পিকার, কংগ্রেস প্রার্থী কুলদীপ শর্মাও এবার জিততে পারেননি। বিজেপির নির্মল রানির কাছে তিনি হেরেছেন।