নদীয়ার শান্তিপুরে শব্দ দানবের বিরুদ্ধে সরব হলেন মাইক ব্যবসায়ীর সদস্যরাই

28

মলয় দে, নদীয়াঃ বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বণ! তার ওপর বিভিন্ন আনন্দ অনুষ্ঠান সভা-সমিতি মিটিং মিছিল প্রশাসনিক প্রচার তো রয়েইছে! শব্দ আইনের বিধানদাতা হোক বা রক্ষক অথবা বিধিভঙ্গের প্রতিবাদে প্রচার! সকলের ভরসা সেই শব্দযন্ত্রের উপরেই।

“অন্যান্য জেলায় বা নদীয়ার অন্য প্রান্তে প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ লক্ষ্য করা যায় না, যত সমস্যা শান্তিপুরে,” বলছেন লাইট মাইক ব্যবসায়ী সমিতির শান্তিপুর শাখার সদস্যরা।

সম্প্রতি হরিপুর পঞ্চায়েতের অন্তর্গত হর্ননদী বেলেডাঙ্গা অঞ্চলে   দিবারাত্র চলছে শব্দের প্রতিযোগিতা অত্যন্ত উচ্চ শব্দ সম্পন্ন বিভিন্ন বড় বড় বক্স এবং একসাথে ৩০-৪০ টি মাইক বেঁধে, এমনকি প্রায় মধ্যরাত পর্যন্ত এই স্বপ্ন এসে পৌঁছায় ১০-১৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত শান্তিপুর শহরেও।

তাদের দাবি প্রশাসন জানেন না এমন নয়, অথচ তাদের ওপর কোনো আইনি ব্যবস্থা নেন না, অথচ তাদের ক্ষেত্রে রাত দশটা পার হলে অথবা সামান্য  ভুল ত্রুটির ক্ষেত্রেও মাইক সেট তুলে নিয়ে আসার দৃষ্টান্ত অনেকবার রয়েছে। এই দ্বিচারিতার বিরুদ্ধে, প্রায় ৩০ জন মাইক ব্যবসায়ী আজ শান্তিপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ জমা করলেন। তারা জানান, শান্তিপুর থানার আধিকারিকের  সাথে দেখা না হলেও, কর্তব্যরত এক অফিসারের সাথে কথা হয়েছে, তারা বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন।