একই দিনে মাথাভাঙার পর শিলিগুড়িতে, চিকিৎসকের গাফিলতিতে শিশুমৃত্যুর অভিযোগ তুলে ভাঙচুর নার্সিংহোমে

103

শিলিগুড়ি, ৩ নভেম্বরঃ একইদিনে মাথাভাঙার পর ফের চিকিৎসায় গাফিলতিতে শিশুমৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভাঙচুর চলল শিলিগুড়ির মাটিকাটা এলাকার একটি নার্সিংহোমে।

জানা গিয়েছে, অক্টোবরের ৩১ তারিখ দুর্ঘটনায় আহত হয় খড়িবাড়ি ব্লকের বাতাসী রানীগঞ্জ পানীশালি গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান শ্রী ভবতোষ মণ্ডলের বড় ছেলে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে শিলিগুড়ির একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে আইসিইউতে রাখা হয়। গতকাল সন্ধে পর্যন্ত শিশুটির পরিবারের সদস্যদের জানানো হয় সুস্থ রয়েছে ওই খুদে। পরে রবিবার সকালে আচমকাই হাসপাতালের তরফে রোগীর পরিবারের সদস্যদের জানানো হয় যে মৃত্যু হয়েছে শিশুটির।

শিশুমৃত্যুর খবর পেয়েই ক্ষোভে ফেটে পড়েন রোগীর পরিবারের সদস্যরা। প্রথমে হাসপাতালের বাইরে বিক্ষোভ দেখায় তাঁরা। ভাঙচুর করা হয় হাসপাতালের ভিতরে। খবর পেয়েই হাসপাতালে যায় বিশাল পুলিশ বাহিনী। দীর্ঘক্ষণের চেষ্টায় আয়ত্তে আসে পরিস্থিতি। শিশুর পরিবারের অভিযোগ, সংকটজনক অবস্থায় ওই শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরই মোটা অংকের টাকা দাবি করে নার্সিং হোম কর্তৃপক্ষ। সেই টাকাও দেয় শিশুর পরিবার। কিন্তু তা সত্ত্বেও পর্যাপ্ত পরিষেবা দেয়নি হাসপাতাল। অভিযোগ, সেই গাফিলতির জেরেই মৃত্যু হয়েছে ওই শিশুটির। পুলিশের তরফে বলা হয়েছে, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। শিশুর পরিবারের অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে। যদিও রোগীর পরিবারের অভিযোগ ভিত্তিহীন বলেই দাবি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। হাসপাতালের তরফে জানানো হয়েছে, প্রথম থেকেই পরিস্থিতি অত্যন্ত সংকটজনক ছিল শিশুটির। সেই কারণেই এক পর্যায়ে চিকিৎসায় সাড়া দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছিল খুদে।

প্রসঙ্গত, একই দিনে মাথাভাঙা হাসপাতাল ও মাটিকাটা এলাকায় শিশু মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভাঙচুরের ঘটনায় রীতিমতো প্রশ্নের মুখে হাসপাতাল ও নার্সিং হোমের নিরাপত্তা ব্যবস্থা।