দক্ষিন দিনাজপুর জেলার ভাগ্যে ভি ডি আর ল্যাবের শিকে ছিড়ল, খুশির হাওয়া জেলায়

52

বালুরঘাট, ২০ মেঃ কোভীড অতিমারীর প্রথম ঢেউয়ের সময় থেকে ভিডি আর ল্যাবের অভাবে করোনা টেস্টের রেজাল্ট পেতে দক্ষিন দিনাজপুর জেলাকে মালদা জেলার মুখাপেক্ষী হয়ে বসে থাকতে হতো। অবশেষে কোভীডের দ্বীতিয় ঢেউ আছড়ে পড়ার পর  দক্ষিন দিনাজপুর জেলার  ভাগ্যে ভি ডি আর ল্যাবের শিকে ছিড়ল। প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে  বালুরঘাট সুপারস্পেশালিটি হাসপাতাল এ হতে চলেছে  ভিডি আর ল্যাব।

বৃহষ্পতিবার দুপুরে বালুরঘাট  সুপারস্পেশালিটি হাসপাতালে পরিদর্শনে এসে এমনই তথ্য জানালেন উত্তরবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত ওএসডি ডক্টর সুশান্ত রায়। আজ এই পরিদর্শনে  ডক্টর সুশান্ত রায় ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডক্টর সুকুমার দে,  দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার সহ স্বাস্থ্য অধিকর্তা ডক্টর রমেশ কিস্কু সহ অন্যান্য দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিকরা । আর এই ভিডি আর  ল্যাব তৈরির ফলে উপকৃত হবেন  দক্ষিন দিনাজপুর জেলা তো অটেই পাশাপাশি আধুনিক মানের এই ল্যাব থেকে  উপকৃত হবেন উত্তরবঙ্গ জুড়ে অসংখ্য মানুষ।

গত বছর কোভীডের ঢেউ আছড়ে পড়ার পর সময় দুই মাস এই দক্ষিন দিনাজপুর জেলা গ্রীন জোন হিসেবে গন্য হয়েছিল।  তাই এই ল্যাবের ততটা প্রয়জোনীয়তার সম্মুখীন হতে হয়নি।  কিন্তু  লকডাউনের সময় ভিন রাজ্য থেকে পরিযায়ী শ্রমিকরা জেলায় ঢোকার পর থেকেই কোভীডের টেস্ট জরুরি হয়ে পড়ে। কিন্তু সমস্যা দেখা দেয় অন্যখানে।   দক্ষিন দিনাজপুর জেলা হাসপাতালে যে হেতু কোন ভি ডি আর ল্যাব ছিলনা। তাই প্রথমে শিলিগুড়ি  উত্তরবংগ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠাতে হতো। সেখান থেকে টেস্টের রেজাল্ট পেতে বেশ কয়েক দিন দেরী হয়ে যেত। তার ফলে চিক্যিসা শুরু হতেও দেরী হয়ে যেত। পরে মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভিডি আর ল্যাব চালু হলেও সেখানে পাঠানো হয়ে আসত। এখনও মালদাতেই টেস্টের জন্য পাঠানো হয়ে থাকে জেলা থেকে কিন্তু ইদানিং রিপোর্ট  একদিন পর হাতে পেলেও গতবছর তা পেতে বেশ কয়েকদিন সেই দেরী হতো।  যার ফলে দ্রুত চিকিৎর সমস্যার  মধ্যে পড়তে হত জেলা স্বাস্থ্য দফতরকে।

সে সমস্যা কাটাতে  গতবছর কোভীড পরিস্থিতি নিয়ে উত্তরবংগের ভার প্রাপ্ত ও এস ডি সুশান্ত রায় জেলায় এসে এ ব্যাপারে বৈঠক করে জেলায় ভি ডি আর ল্যাব খোলার জন্য রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরকে বিষয়টি  জানিয়েছিল। সেদিক কোভীড টেস্টের এই  ভিডিআর ল্যাব তৈরি হলে বালুরঘাট সুপারস্পেশালিটি হাসপাতালেই করা যাবে কোভিড আর টি পি সি আর  টেস্ট। ফলে  দক্ষিণ দিনাজপুরের কোভিড আক্রান্ত রোগীরা খুব অল্প সময়ের মধ্যেই কোভিড  টেস্টের রিপোর্ট হাতে পেয়ে যাবেন। তাদের আর এই রিপোর্ট পেতে আর মালদার ওপর নির্ভর করতে হবে না। ফলে উপকৃত হবে এই অঞ্চলের  অসংখ্য মানুষ। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর এর পক্ষ থেকে  জানা গেছে আর মাসখানেকের মধ্যেই তৈরি হয়ে যাবে এই ভিডি আর  ল্যাব।