বছরে ১০০ কোটি ডোজ তৈরি করবে জানাল ভারত বায়োটেক

53

ওয়েব ডেস্ক, ২১ মেঃ করোনা টিকার অভাব দেখা দিয়েছে দেশের বিভিন্ন রাজ্যে। এই আবহে কোভ্যাক্সিনের সরবরাহ বাড়াতে উদ্যোগ নিল ভারত বায়োটেক। করোনা টিকার অভাব দেখা দিয়েছে দেশের বিভিন্ন রাজ্যে। এই আবহে কোভ্যাক্সিনের সরবরাহ বাড়াতে উদ্যোগ নিল ভারত বায়োটেক। গুজরাতের অঙ্কলেশ্বরে অবস্থিত তাদের এক সাবসিডিয়ারি সংস্থা চাইরন বেহরিং ভ্যাকসিন কেন্দ্রে উৎপাদন করা হবে কোভ্যাক্সিনের। দেশে টিকাকরণ প্রক্রিয়া যাতে দ্রুত এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়, তার জন্য এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানালেন ভারত বায়োটেকের তরফে। এছাড়া সংস্থার তরফে আরও জানানো হয়েছে, বছরে ১ বিলিয়ন ডোজ উৎপাদন করার লক্ষে এগোচ্ছে তাঁরা।

ভারত বায়োটেকের সমস্ত ‘জিএমপি’ ফ্যাক্টরিতেই কোভ্যাক্সিন তৈরি করা হবে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। চাইরন বেহরিংয়ের মতো ফ্যাক্টরিগুলিতে বছরে ২০০ মিলিয়ন কোভ্যাক্সিনের ভায়াল উৎপাদন করবে ভারত বায়োটেক। ২০২১ সালের চতুর্থ কোয়ার্টারে অঙ্কলেশ্বরে উৎপাদন শুরু হবে কোভ্যাক্সিনের। সার্বিক ভাবে বছরে ১০০ কোটি কোভ্যাক্সিন ডোজ উৎপাদনের পরিকল্পনা করছে ভারত বায়োটেক। ভেরো সেল প্রযুক্তিতে তৈরি হওয়া এই টিকাটি জিএমপি এবং বায়োসেফটি মান বজায় রেখে উৎপাদন করা হবে বলে জানান।

ইতিমধ্যেই ভারত বায়োটেক বিভিন্ন ‘প্রোডাকশন লাইন’-কে এই টিকার উৎপাদনের জন্য কাজে লাগিয়েছে। হায়দরাবাদ এবং বেঙ্গালুরুর প্রোডাকশন লাইনে এখন পর্যন্ত উৎপাদন হচ্ছে কোভ্যাক্সিনের।কিন্তু এই আবহে এবার গুজরাতের অঙ্কলেশ্বরের চাইরন বেহরিংয়ে উৎপাদন শুরু হবে কোভ্যাক্সিনের।