আত্মনির্ভরতার পথে আরও এক ধাপ এগিয়ে ভারত, ১০১ টি সেনা সরঞ্জামে নিষেধাজ্ঞা কেন্দ্রের

176

ওয়েব ডেস্ক, ৯ আগস্টঃ প্রথমে চিনা অ্যাপ। তারপরই আত্মনির্ভরতার পথে আরও এক ধাপ এগিয়ে ভারত। ভারতের প্রতিরক্ষার জন্য একগুচ্ছ বড় ঘোষণা করলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। রবিবার সকালেই এই ঘোষণার কথা জানানো হয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফ থেকে। এরপর একগুচ্ছ ট্যুইটে সেসব ঘোষণা করেন রাজনাথ সিং।

জল্পনামতোই একাধিক টুইটবার্তায় রাজনাথ জানান, অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে যে ‘আত্মনির্ভর ভারত’ অভিযান শুরু হয়েছে, প্রতিরক্ষা খাতেও একইভাবে ‘আত্মনির্ভর’ হওয়ার পথে হাঁটছে ভারত। তিনি বলেন, ‘আত্মনির্ভর ভারত অভিযানকে এগিয়ে নিয়ে যেতে তৈরি প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। প্রতিরক্ষা খাতে দেশীয় উৎপাদনকে বল দিতে নির্দিষ্ট সময়সীমার পরে ১০১ টি সরঞ্জামে নিষেধাজ্ঞা চাপাতে চলেছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক।’

করোনা মহামারীর আবহে দেশকে আত্মনির্ভর করার ডাক দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি । যার মূল কথা, বিদেশি পণ্যের আমদানি কমিয়ে দেশিয় উৎপাদনে জোর দেওয়া। সেই স্বপ্ন সফল করতেই এবার যুগান্তকারী পদক্ষেপ করতে চলেছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। এ দিন এ প্রসঙ্গে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং টুইটারে লেখেন, “আত্মনির্ভরতার লক্ষ্যে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। মন্ত্রকের তরফে ১০১টি পণ্যের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে, যেগুলি নির্দিষ্ট সময়ের পর আর আমদানি করা যাবে। দেশিয় উৎপাদন বাড়াতেই এই সিদ্ধান্ত।”

তাই দফায়-দফায় আলাপ-আলোচনার পরই এই পণ্যের তালিকা তৈরি হয়েছে। মন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, আগামী পাঁচ -ছয় বছরে প্রায় চার লক্ষ কোটি টাকার বরাত দেওয়া হবে দেশিয় সংস্থাগুলিকে। নিষিদ্ধ হওয়ার এই তালিকায়  শুধুমাত্র অস্ত্রের বিভিন্ন অংশই নেই। রয়েছে উন্নত প্রযুক্তি অত্যাধুনিক অস্ত্রও। যেমন আর্টিলারি বন্দুক, অ্যাসল্ট রাইফেল, ব়্যাডার, এয়ারক্রাফ্ট-সহ একাধিক উন্নতপ্রযুক্তির অস্ত্র রয়েছে।  ওই ১০১ টি জিনিসের তালিকায় রয়েছে আর্টিলারি গান, কমব্যাট হেলিকপ্টার, অ্যাসল্ট রাইফেল, কভার্ট, রাডার, সশস্ত্র গাড়ি, ট্রান্সপোর্ট এয়ারক্রাফট সহ একাধিক উচ্চপ্রযুক্তিসম্পন্ন অস্ত্র। এবার থেকে এসবই তৈরি হবে ভারতে।

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগেই দীর্ঘ ১৮ বছরের অপেক্ষার পরে ফ্রান্স থেকে ভারতের কাছে এসেছে বহুপ্রতীক্ষিত রাফায়েল। ৭,৩৬৪ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে এই ফাইটার জেটগুলি এসে পৌঁছেছে। ৩৬টি সুপারসোনিক ওমনিরোল কমব্যাট এয়ারক্রাফটের মধ্যে এই ৫টি ফাইটার জেট প্রথম পর্যায়ে পাঠানো হয়েছে।