সিএএ-র সমর্থনের নম্বর দিয়ে যৌনতার আমন্ত্রণ! অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে

1189

ওয়েব ডেস্ক, ৫ জানুয়ারিঃ  দেশজুড়ে নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ অব্যাহত। সিএএ সমর্থন পেতে মরিয়া বিজেপি। তাই সিএএ-র পক্ষে সমর্থন পেতে ও সাধারণ মানুষকে এ নিয়ে অবহিত করতে খোদ বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ একটি মোবাইল নম্বরে মিসড্‌ কলের আহ্বান জানিয়েছিলেন ক’দিন আগে। দেখা যাচ্ছে, বিজেপির সেই নম্বরই কোনও মহিলার নামে টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে শেয়ার করে লেখা হয়েছে, ‘এটা আমার নম্বর। আমাকে মিসড্‌ কল করুন।’ কেউ আবার ওই নম্বর টুইটারে শেয়ার করে লিখেছেন, ‘এতে ফোন করলে ৬ মাস বিনা পয়সায় নেটফ্লিক্স দেখা যাবে।’ কেউ আবার সোশ্যাল মিডিয়ায় নম্বর শেয়ার করে লিখেছেন, ‘আমি যার প্রেমে পড়েছি, এ নম্বর সেই মহিলার!’ সোস্যাল মিডিয়ায় সিএএ-বিরোধী অনেকে অভিযোগ করে বলছেন, ভুয়ো পরিচয়ে সিএএ-র পক্ষে বিপুল সমর্থন জোগাড় করতেই এমন কৌশল নিয়েছে বিজেপির আইটি সেল।

তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করে দিল্লিতে বিজেপি বলছে, কারা ওই প্রচার চালাচ্ছে, তা তদন্তসাপেক্ষ। বিরোধীরাও ওই কাজ করে থাকতে পারে। একই সঙ্গে অবশ্য দলের তরফে স্বীকার করে নেওয়া হয়েছে, অনেক সময়ে উৎসাহী সমর্থকেরা দলের লক্ষণরেখার বাইরে গিয়ে কাজ করে ফেলে। যা অনুচিত।

তবে প্রশাসনের কর্তারা বলছেন, ‘‘এটা আইনের চোখে প্রতারণা। প্রশাসনের তরফে যা ব্যবস্থা নেওয়ার তা নেওয়া হবে।’’

তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে যে টুইটার অ্যাকাউন্টগুলি থেকে ওই নম্বর ভাইরাল করা হয়েছে, সেগুলির বেশ কয়েকটি রয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী-সহ বিজেপি নেতৃত্বের ‘ফলোয়ারে’র তালিকায়। তা হলে কেন বিজেপি পুলিশে অভিযোগ করছে না? জল্পনা বাড়িয়ে সায়ন্তন বসুর বক্তব্য, ‘আমরা পুলিশে অভিযোগ করব না। রাজনৈতিক ভাবে মোকাবিলা করব।’ যার পাল্টা আবার তাপসের দাবি, ‘বিজেপি যতই এ ভাবে মিসড্‌ কল ক্যাম্পেন করুক, লাভ হবে না। এ ভাবে সিএএ-র পক্ষে সমর্থন ওরা পাবে না। গোটা দেশের মানুষ এর বিরোধিতায় পথে নেমেছে।’