শর্তসাপেক্ষে কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড়া পেল সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্তকারী আইপিএস অফিসার

73

ওয়েব ডেস্ক, ৭ আগস্টঃ অবশেষে শর্তসাপেক্ষে কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড়া পেল সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্তকারী আইপিএস অফিসার বিনয় তিওয়ারি। সাম্প্রতি, মুম্বইয়ে পা রাখামাত্র আইপিএস অফিসারকে জোর করে কোয়ারেন্টাইন করে বৃহন্মুম্বই পুরনিগম। তবে আজ শর্তসাপেক্ষে ছাড়া পেলেন তিনি। জানা গিয়েছে, পটনা পুলিশ বিহারের অফিসার বিনয় তিওয়ারিকে মুক্তি দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছিল। বলা হয়েছিল, সুশান্তের মৃত্যুর তদন্তের জন্য তাঁর আর মুম্বইতে থাকার প্রয়োজন নেই। তাঁকে পাটনায় কাজে যোগ দিতে হবে। সেই কারণেই কোয়ারানটিন থেকে মুক্তি দেওয়া হচ্ছে অফিসারকে। তবে তাঁকে ৮ অগস্টের মধ্যে শহর ছাড়তে বলে শর্ত দিয়েছে বিএমসি। তাঁর রিটার্ন টিকিটের যাবতীয় তথ্য পুরনিগমকে জানানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু তদন্তে বিহার পুলিশের সহায়তা করছে না মুম্বই পুলিশ। এমন অভিযোগ অনেকদিনই ওঠে। আর তারপরই মুম্বইয়ে এসপি বিনয় তিওয়ারিকে জোর করে কোয়ারেন্টাইন করা নিয়ে তীব্র বিতর্ক তৈরি হয়। যদিও নিজেদের অবস্থানে অনড় ছিল বিএমসি। তবে মৃত্যুর তদন্তভার সিবিআইয়ের সিবিআই হাতে যাওয়ার পর বদলে গেল ছবিটা। বিহার পুলিশের তরফে বিএমসি’কে অনুরোধ জানানো হয়। বলা হয়, তদন্তের কাজে তাঁর আর মুম্বই থাকার প্রয়োজন নেই। কিন্তু পাটনায় কাজে যোগ দেওয়া জরুরি বিন তিওয়ারির। তাই তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হোক। সেই অনুরোধে সাড়া দিয়েই শর্তসাপেক্ষে ছাড়া নয় আইপিএস অফিসারকে।

আইপিএস অফিসার কোভিড নিয়ম জানেন না দেখে তারা স্তম্ভিত বলেও জানিয়েছে বিএমসি। তাদের দাবি, ‘এখানে রাজনীতির কিছু নেই। আমরা রুল বুক মেনে চলছি।’ অফিসারকে যে শর্তগুলি মানতে হবে সে গুলি হল, ৮ অগস্টের মধ্যে তাঁকে মুম্বই ছাড়তে হবে, ফেরার যাবতীয় তথ্য জানাতে হবে, নিজস্ব গাড়িতে চড়ে তিনি বিমানবন্দরে যাবেন এবং বিমান যাত্রীদের জন্য নির্দিষ্ট করা সব নিয়ম মেনে চলবেন, সফরের সময় তিনি মাস্ক ব্যবহার করবেন এবং হাইজিন মেনে চলবেন। এ দিকে, সুশান্তের মৃত্যু মামলায় পটনা পুলিশের চার সদস্যের দল ইতোমধ্যেই কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পটনা ফিরে গিয়েছে।

শুক্রবারই পাটনা উড়ে যাচ্ছেন বিনয় তিওয়ারি। এদিকে, সুশান্ত মৃত্যু তদন্তে শুক্রবারই প্রয়াত অভিনেতার বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীকে তলব করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ED)। কিন্তু রিয়ার আইনজীবী জানাচ্ছে, অভিনেত্রীর অনুরোধ সুপ্রিম কোর্টের শুশানির পর যেন তাঁর বয়ান রেকর্ড করা হয়।