স্বপ্নদীপের মৃত্যুতে হুঁশ ফিরল কর্তৃপক্ষের, একগুচ্ছ নির্দেশিকা ঘোষণা করলেন রেজিস্ট্রার

0
41

খবরিয়া ২৪ নিউজ ডেস্ক, ১৭ অগাস্ট, কলকাতাঃ যাদবপুরের ছাত্রমৃত্যুর ঘটনায় তোলপাড় রাজ্য। ঘটনার আটদিন পর নড়েচড়ে বসল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বৃহস্পতিবার একগুচ্ছ নির্দেশিকা ঘোষণা করেছেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার স্নেহমঞ্জু বসু।

এদিন সাংবাদিক বৈঠক করে রেজিস্ট্রার জানান, এবার থেকে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে প্রবেশ করার সময় দেখা হবে পরিচয়পত্র। রাত ৮টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশে পরিচয়পত্র বাধ্যতামূলক। যদি কারও কাছে যাদবপুরের পরিচয়পত্র না থাকে, তাহলে তাঁকে অন্য যে  কোনও পরিচয়পত্র দেখাতে হবে। সঙ্গেই কার সঙ্গে দেখা করার জন্য যাচ্ছেন তাঁর নাম, ফোন নম্বর লিখতে হবে রেজিস্টারে।

নিরাপত্তারক্ষীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়ে আগত গাড়িগুলির ওপরেও যাতে নজর রাখা হয়। চালক ও যাত্রী উভয়কেই আই ডি কার্ড দেখাতে হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। সঙ্গেই কার সঙ্গে দেখা করার জন্য যাচ্ছেন তাঁর নাম, ফোন নম্বর লিখতে হবে রেজিস্টারে।

দু’ চাকা-চার চাকা  প্রবেশের জন্য তার ওপর অবশ্যই বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টিকার থাকতে হবে। স্টিকার না থাকলে যানবাহনের রেজিস্ট্রেশন নম্বর গেটে লিখে যেতে হবে। পাশাপাশি, ক্যাম্পাসের ভিতর অ্যালকোহল ও ড্রাগ নিষিদ্ধ বলে উল্লেখ করে রেজিস্ট্রার বলেন, ‘কারও কাছে এই ধরনের দ্রব্য পাওয়া গেলে, তাঁর বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ছাত্রমৃত্যুর ঘটনার পর থেকেই প্রশ্ন উঠছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের সিসিটিভি নিয়েও। আজ রেজিস্ট্রার জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে কেবল গেটেই বসবে সিসিটিভি ক্যামেরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের সমস্ত বিভাগীয় প্রধান, নির্দেশক, বিভাগ, আধিকারিক, ইউনিট, শিক্ষক, কর্মী, আধিকারিক এবং ছাত্র সংগঠনকে পাঠানো হয়েছে ওই নির্দেশিকা। বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে ওই নির্দেশিকা আপলোড করার কথাও বলা হয়েছে। নির্দেশিকা জারির সঙ্গে সঙ্গে অর্থাৎ বৃহস্পতিবার থেকেই কার্যকর করা হয়েছে নিয়ম।

গত ৯ অগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের মেন হস্টেলের এফ-২ ব্লকের তিনতলা থেকে পড়ে মৃত্যু হয় প্রথম বর্ষের ছাত্রের। ঠিক ওই দিন হস্টেলে কী কী ঘটেছিল, সেটাই এখন তদন্ত করে দেখছে পুলিশ। এই মৃত্যু ঘটনায় র‍্যাগিংয়ের অভিযোগ সামনে এসেছে। ইতিমধ্যেই পুলিশ ৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। একই সঙ্গে সিসিটিভি, র‍্যাগিং, হোস্টেলের রুম বণ্টন, প্রাক্তনীদের উপস্থিতি সহ একগুচ্ছ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। ইতিমধ্যে ঘটনার তদন্তে ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং টিম গড়েছে রাজ্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here