দোকানপাট খোলা রাখার নির্দেশ জলপাইগুড়ি জেলা পুলিশ সুপারের

152

ওয়েব ডেস্ক, ৭ জানুয়ারি : বনধ ঠেকাতে আশ্বাস এবার খোদ জেলার পুলিশ সুপারের তরফে। মঙ্গলবার উত্তরবঙ্গের জলপাইগুড়ি জেলার পুলিশ সুপার অভিষেক মোদিকে দেখা গেল কার্যত রক্ষকের ভূমিকাতেই। বনধে ভয় পেয়ে যাতে কেউ দোকানপাট বন্ধ করে না রাখেন তার জন্য নিজে রাস্তায় নেমে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তার আশ্বাস দিলেন তিনি। তিনি সাফ জানিয়ে দিলেন, ‘দোকানপাট খোলা রাখুন, প্রয়োজনে আমি নিজে দাঁড়িয়ে থেকে সিকিউরিটি দেব’। এই আশ্বাসটাই পেতে চাইছিলেন জেলার ব্যবাসায়ী মহল থেকে আমজনতা।

বুধবারের বাম-কংগ্রেসের ডাকা ধর্মঘটের সমর্থনে যখন অফিস থেকে শপিং মলে গিয়ে দুই দলের কর্মী থেকে ছাত্র যুবরা লিফলেট বিলি করছে ঠিক তখনই জনজীবন স্বাভাবিক রাখতে সমস্ত রকম ব্যাবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলেন জলপাইগুড়ি জেলার পুলিশ সুপার। বুধবারের ধর্মঘট নিয়ে জলপাইগুড়ি জেলার চা বাগান সহ বিভিন্ন এলাকায় ইতিমধ্যে দেওয়াল লিখন, মাইকিং, সভা সমিতি, মিছিল, মিটিং সহ বিভিন্ন ভাবে ব্যাপক প্রচার চালিয়েছে বাম সহ অন্যান্য দলগুলি। মঙ্গলবার বনধের সমর্থনে জলপাইগুড়ি জেলার বিভিন্ন দপ্তরগুলিতে গিয়েও লিফলেট বিলি করে ছাত্র যুবরা। ডিওয়াইএফআই এর জলপাইগুড়ি শহর লোকাল কমিটির সম্পাদক সাম্য সরকার জানান, ‘বুধবারের ধর্মঘট নিয়ে সর্বস্তরের মানুষকে আমরা ইতিমধ্যে বিভিন্ন ভাবে অবগত করেছি। আমাদের বিশ্বাস বনধ ব্যাপক সাফল্য পাবে।’

মঙ্গলবার জলপাইগুড়ি জেলার সদর মহকুমা শাসক রঞ্জন কুমার দাস জানান, ‘বনধ হলে মানুষের কাজে অনেকটা ক্ষতি হয়। তাই জনজীবনদকে স্বাভাবিক রাখতে সমস্ত ব্যাবস্থা নেবে জেলা প্রশাসন।’ এরই মাঝে পুলিশ সুপার অভিষেক মোদি জানান, আগামীকাল বনধ নিয়ে জেলার প্রতিটি থানাকে এলার্ট করা আছে। বাসস্ট্যান্ড, বাজারহাট, স্কুলকলেজ সহ বিভিন্ন যায়গায় পর্যাপ্ত পুলিশের বন্দোবস্ত করা হয়েছে। জোর করে কেউ দোকানপাট বন্ধ করতে গেলে আইন অনুযায়ী ব্যাবস্থা নেওয়া হবে। প্রয়োজনে তিনি নিজে থাকবেন বলেও জানান তিনি।