চ্যাংরাবান্ধা স্থলবন্দর পরিদর্শনে গেলেন জলপাইগুড়ির সাংসদ

4

চ্যাংরাবান্ধা, ১৫ সেপ্টেম্বরঃ সীমান্ত বাণিজ্য কেন্দ্রের পরিকাঠামো উন্নয়নের উদ্যোগ নেওয়া হোক। কারন সীমান্তের পরিকাঠামোর উন্নয়ন হলে বাণিজ্যের প্রসার ঘটবে। রবিবার কোচবিহার জেলার চ্যাংরাবান্ধা স্থলবন্দর পরিদর্শনে আসেন জলপাইগুড়ি লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ ডাঃ জয়ন্ত কুমার রায়। তার কাছে সীমান্তের বিভিন্ন  পরিকাঠামোগত সার্বিক উন্নয়নের আর্জি জানান বৈদেশিক বাণিজ্যের সাথে যুক্ত বিভিন্ন ব্যবসায়ীরা। তারা সাংসদকে এই সীমান্ত চেকপোস্টের বিভিন্ন সমস্যার বাস্তব চিত্র ঘুরিয়েও দেখান। এদিন সাংসদের সাথে সীমান্ত পরিদর্শনের সময় তার সাথে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির মেখলিগঞ্জের বিজেপি নেতা দধিরাম রায়।

ব্যবসায়ীরা দাবি তোলেন, দ্রুত চ্যাংরাবান্ধা স্থলবন্দরকে ইন্টিগ্রেটেড চেকপোস্টে উন্নীত করতে হবে কারণ ইন্টিগ্রেটেড চেকপোস্ট হলে এখানে একই ছাদের তলায় নানা পরিকাঠামো গড়ে উঠবে। পাশাপাশি সীমান্ত চেকপোস্ট এলাকা ঘুরে এখানকার পরিকাঠামোগত বিভিন্ন দৃশ্য দেখে সাংসদও হতাশা প্রকাশ করেছেন।

তিনি বলেন, ব্যাবসায়ীরা তাকে জানিয়েছেন পরিকাঠামোগত সমস্যার দরুণ অবস্থা। এই সীমান্ত দিয়ে বৈদেশিক বাণিজ্য করতে সমস্যা হচ্ছে। বিষয়গুলি দিল্লিতে সংশ্লিষ্ট মহলে জানানো হবে।

এবিষয়ে চ্যাংরাবান্ধা এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশনের সম্পাদক বিমল কুমার ঘোষ বলেন, সাংসদকে বিভিন্ন দাবির ভিত্তিতে স্মারকলিপিও দেওয়া হয়েছে। বিষয়গুলি তিনি ক্ষতিয়ে দেখার আশ্বাসও দিয়েছেন।