আটক পাঁচ বিধায়ককে মুক্তি দিল জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসন

160

ওয়েব ডেস্ক, ৩১ ডিসেম্বরঃ ৩৭০ ধারা বিলোপের সঙ্গে সঙ্গে উপত্যকার রাজনৈতিক নেতাদের গৃহবন্দি করার সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্রীয় সরকার।সোমবার প্রায় ৫ মাস পরে মুক্তি পেলেন ৫ কাশ্মীরি বিধায়ক। যদিও  জম্মু কাশ্মীরের সব থেকে প্রভাবশালী তিন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব— ফারুক আবদুল্লা, ওমর আবদুল্লা এবং মেহবুবা মুফতিকে এখনও মুক্তি দেয়নি কেন্দ্রীয় সরকার।যে পাঁচজন কাশ্মীরি রাজনীতিক সোমবার মুক্তি পেয়েছেন।তাঁরা হলেন, ইশফাক জব্বার, গুলাম নবি ভাট, বসির মীর, জাহুর মীর ও ইয়াসির রেশি।

এই পাঁচজনের মধ্যে দুজন পিডিপি নেতা, ২ জন ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ও একজন নির্দল নেতা। উপত্যকার রাজনৈতিক পরিস্থিতি উন্নত হওয়াতেই এই নেতাদের মুক্তি মিলেছে জানা গিয়েছে। ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার পর থেকেই সেই রাজনৈতিক স্থিরতা বিপন্ন হয়েছে। সম্প্রতি উপত্যকায় ব্লক স্তরে ভোট হয়েছে উপত্যকায়।এই নির্বাচনকে অনুপস্থিত ছিল জম্মু ও কাশ্মীরের তিনটি প্রধান রাজনৈতিক দল পিডিপি, ন্যাশনাল কনফারেন্স ও কংগ্রেস। এই রাজনতিক দল ভোট বয়কট করলেও লোকাল বডি ৯৮ শতাংশ ভোট পেয়েছে।

প্রসঙ্গত, জম্মু ও কাশ্মীরের ৩৭০ ধারা বিলোপের পর থেকে শুধু রাজনৈতিক নেতানেত্রীরাই তাই নয় প্রায় পাঁচ হাজার ৫০০ জন বাসিন্দাকেও গ্রেপ্তার করেছে উপত্যকার পুলিশ।সেই সময় গোটা জম্মু ও কাশ্মীরে ছিল কমিউিকেশন ব্লকেড।১৪৪ ধারার কোপ, সাধারণ মানুষ হাঁফিয়ে উঠেছিল।সেনার বুটের আওয়াজে পরিবেশ ভারী হয়ে থাকত।কখনও দুজন মানুষও একসঙ্গে কথা বলার সুযোগ পেত না। এমন বদ্ধ জীবনযাপন অসহ্য হয়ে উঠলে বাসিন্দাদের অনেকেই সেনার দলকে লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়েছে। এই অপরাধে তাদের জেলের সাজাও হয়েছে।তবে ধীরে ধীরে একে একে সবাই জেল থেকে মুক্তিও পেয়েছে। উপত্যকার আংশিক জায়গায় এখনও কমিউনিকেশন ব্লকেড অব্যাহত।সব জায়গায় মোবাইল ফোনের পরিষেবা ও ইন্টারনেট এখনও ফেরেনি।