জেএনইউ কাণ্ডে উপাচার্যকে তলব করল মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক

37

ওয়েব ডেস্ক, ৯ জানুয়ারিঃ জেএনইউ কাণ্ডে এবারে খোদ উপাচার্যকে তলব করল মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক। শুক্রবার সকালে তাঁর সাথে আলোচনায় বসবে সচিব অমিত খারে। যদিও উপাচার্য এবিষয়ে কিছু জানান নি। তবে জগদীশ এম কু্মারকে এখনই অপসারণ করা হবে না এই বিষয়টি সাফ জানিয়ে দিয়েছে মন্ত্রক। তবে এবিষয়ে ইতিমধ্যে আন্দোলনরত পড়ুয়াদের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে তুমুল বিতর্ক।

প্রসঙ্গত, ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে আন্দোলন করতে গিয়ে বিজেপির ছাত্র সংগঠন এবিভিপির দ্বারা নিগ্রিত হতে হয়েছিল এসএফআই-য়ের ছাত্র সংসদের নেত্রী ঐশী ঘোষকে। ঘটনায় ঐশী ছাড়াও আক্রান্ত হয়েছিল আরও কয়েকজন ছাত্রী সহ অধ্যাপিকাকেও। এর জেরে প্রবল ছাত্র আন্দোলন শুরু হয়েছিল জেএনইউজুড়ে। পাশাপাশি সেখানকার উপাচার্যকে পদত্যাগেরও দাবি ওঠে।

এদিকে ছাত্রদের সঙ্গে মিছিলে পা মেলান সীতারাম ইয়েচুরি, প্রকাশ ও বৃন্দা কারাট, ডি রাজা,  শরদ যাদব। জেএনইউ পড়ুয়াদের সুরে সুর মিলিয়ে উপাচার্যর পদত্যাগ দাবি করেন বাম নেতারাও। প্রতিবাদ মিছিল পায়ে পায়ে পৌছোয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের সামনে। উপস্থিত ছিলেন জেএনইউয়ের প্রাক্তন ছাত্র নেতা কানাইয়া কুমার। আগে থেকেই সেখানে কড়া নিরাপত্তা বলয়ের ঘিরে ফেলা হয়। মন্ত্রকের সামনে মিছিল আটকে দেওয়া হয়। আটজনকে ভিতরে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়।

সেখানে ঐশী ঘোষের নেতৃত্বে জেএনইউর প্রতিনিধিরা মন্ত্রকে গিয়ে ডেপুটেশন জমা দিয়ে আসেন। কিন্তু সেখান থেকে বেরিয়েই ঐশী ঘোষ ঘোষণা করেন তাঁরা মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের সঙ্গে বৈঠকে সন্তুষ্ট নন, যাবেন রাষ্ট্রপতি ভবন। পুলিশ পড়ুয়াদের এই আচমকা সিদ্ধান্তের জন্য প্রস্তুত ছিল না। পুলিশ ভবনের সামনে পড়ুয়াদের মিছিল আটকানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু পড়ুয়ারা ছোট ছোট মিছিলে এগোতে থাকে রাষ্ট্রপতি ভবনের দিকে। পুলিস লাঠি উচিয়ে পড়ুয়াদের আটকায় বলেও জানা গেছে। তবে আজকের এই বৈঠকে কি ঠিক হয় সেটাই এখন দেখার।