নিশীথ ও জন বার্লার শপদ গ্রহণ দেখতে অপেক্ষায় কোচবিহার-আলিপুরদুয়ার

1544

খবরিয়া২৪ ডেস্ক, ৭ জুলাইঃ নিশীথ প্রামাণিক ও জন বার্লা সহ বাংলার ৪ জন সাংসদকে মন্ত্রীসভায় আনতে চলছে মোদী সরকার। আজ সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয়মন্ত্রী হিসেবে বেশ কয়েকজন শপদ গ্রহণ করবেন। এর মধ্যে বাংলা থেকে রয়েছেন কোচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক, আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বার্লা। এছাড়াও রয়েছেন বাংলার আরও দুই সাংসদ শান্তনু ঠাকুর ও সুভাষ নস্কর।

অন্যদিকে প্রথম থেকে মোদীর মন্ত্রীসভায় প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসা দেবশ্রী চৌধুরী ইতিমধ্যেই পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন। স্বাভাবিক ভাবেই মোদীর মন্ত্রীসভা থেকে দেবশ্রী চৌধুরীকে সরিয়ে দেওয়া হল বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিকে মোদীর মন্ত্রীসভায় জায়গা পাচ্ছেন জেনে উত্তরবঙ্গের প্রান্তিক দুই জেলা কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারের বিজেপি কর্মী সমর্থক মহলে ব্যাপক খুশির হাওয়া। সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক একুশের বিধানসভা নির্বাচনে দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্র থেকে বিজেপির প্রার্থী হয়ে জয়ী হয়েছিলেন। কিন্তু পরবর্তীতে বিধানসভা থেকে পদত্যাগ করে সাংসদ হিসেবে থেকে যান। শুধু তাই নয়, কোচবিহার জেলার ৯ বিধানসভা আসনের মধ্যে বিজেপির দখলে গিয়েছে ৭টি। আর জয়ের পিছনে সাংসদ নিশীথ প্রামাণিকের ভূমিকা রয়েছে বলেই মনে করেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। আর সেই কারণে বিজেপি নেতৃত্ব নিশীথ প্রামাণিককে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সভায় নিয়ে আসতে চলেছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

অন্যদিকে সম্প্রতি উত্তরবঙ্গকে পৃথক করার দাবি তুলে সংবাদ মাধ্যমে শোরগোল ফেলে দেওয়া আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বার্লাকেও মন্ত্রী সভায় নিয়ে আসতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। আর তা নিয়ে ফের বাংলার রাজনীতিতে চর্চা শুরু হয়েছে। তৃণমূল কংগ্রেসের অনেক নেতাই ইতিমধ্যেই বলতে শুরু করে দিয়েছেন, “বিজেপি প্রথম থেকেই বাংলা বিরোধী। আর সেই কারণে বাংলা ভাগের দাবি তোলা সাংসদকে মন্ত্রী সভায় নিয়ে আসছে তাঁরা। যাতে ক্ষমতার অপব্যবহার করে উত্তরবঙ্গকে আরও বেশী উত্তপ্ত করে তুলতে পারে ওই বিজেপি সাংসদ।”

তবে সমালোচনা যাইহোক না কেন কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারের মানুষ কিন্তু তাঁদের দুই সাংসদের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হওয়ার জন্য শপদ গ্রহণ অনুষ্ঠান দেখার জন্য অধীর আগ্রহে রয়েছেন।