বাংলাদেশে আত্মগোপন করেছে কলকাতার ‘ওয়ান্টেড’ জেএমবি জঙ্গি সেলিম মুন্সি

41

ওয়েব ডেস্ক, ১৪ জুলাইঃ বাংলাদেশে আত্মগোপন করেছে কলকাতার ‘ওয়ান্টেড’ জঙ্গি সেলিম মুন্সি। গোপালগঞ্জে লুকিয়ে রয়েছে জামাত উল মুজাহিদিন (বাংলাদেশ) বা জেএমবি’র ‘কলকাতা মডিউলের’ ওই লিংকম্যান।

সুত্র মারফত জানা গিয়েছে, কলকাতা থেকে পালিয়ে এসে বাংলাদেশের গোপালগঞ্জ জেলার নিজের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে সেলিম। এমনটা জানিয়েছেন তার স্ত্রী শাহিনুর বেগম। গত ৮ জুলাই কোটালিপাড়ার হিরণ গ্রামে ফিরে আসে সেলিম মুন্সি (৪৫)। কুড়ি বছর ধরে সে কলকাতায় বাস করছিল। প্রায়শই বাংলাদেশে নিজের বাড়িতে আসত সে। তার বাবার নাম সুরাত মুন্সি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের তথ্যানুযায়ী, গত ৩ জুলাই কলকাতার হরিদেবপুর থেকে জেএমবি’র তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার রবিউল ইসলাম ও সাব্বির ওরফে মিকাইলের বাড়ি গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়ার হিরণ গ্রামে। আর নাজিউর রহমান ওরফে পাভেলের বাড়ি টুঙ্গিপাড়ার পাটগাতি গ্রামে। তাদের জেরা করে সেলিম মুন্সির নাম জানতে পারেন ভারতীয় গোয়েন্দারা। তারপর থেকেই পলাতক সেলিম।

সেলিম মুন্সির স্ত্রী শাহিনুর বেগম বলেন, “কুড়ি বছর ধরে আমার স্বামী কলকাতায় থাকেন। তবে তিনি মাঝেমধ্যে বাড়িতে আসতেন। তিনি প্রথমে কলকাতায় গিয়ে ছাতা মেরামতের কাজ শুরু করেন। তারপর এদেশ থেকে তিনি লোক নিয়ে তাদের দিয়ে ছাতা মেরামতের ব্যবসা করতেন।” ওই জামাত জঙ্গির স্ত্রী আরও বলেন, “আমাদের গ্রামের রবিউল ইসলাম ও মিকাইল এবং টুঙ্গিপাড়ার নাজিউর আমার স্বামীর কাছে কাজ করতো বলে শুনেছি। এরা সকলেই পেটের দায়ে কাজ করতে কলকাতা গিয়েছে। এদের বিরুদ্ধে যে জঙ্গিযোগের অভিযোগ উঠেছে সেটি আমার মনে হয় সম্পূর্ণ মিথ্যা।” সেলিম মুন্সির স্ত্রী জানান, গত ৮ জুলাই তার স্বামী সেলিম মুন্সি কলকাতা থেকে বাড়িতে আসে। তার তিন সহযোগী গ্রেপ্তারের খবর ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রচারিত হয়েছে। পাশাপাশি তাঁর স্বামী পালিয়ে এসেছে বলে খবরে জানানো হয়। তাই গত সোমবার বিকেলে তার স্বামী এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছেন বলে জানিয়েছেন শাহিনুর বেগম। তবে মনে করা হচ্ছে বিপদ বুঝতে পেরে ফের গা ঢাকা দিয়েছে সেলিম।