‘মেরুদণ্ডহীন’ রাজ্যপালকে আচার্য পদ থেকে বহিষ্কার করা হোক, চিঠি যাদবপুরের পড়ুয়াদের

257

ওয়েব ডেস্ক, ২৬ ডিসেম্বরঃ চিঠি পাঠিয়ে রাজ্যপাল তথা আচার্য জগদীপ ধনকড়কে ‘বহিষ্কার’ করার কথা জানাল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংগঠন।এমনকী মঙ্গলবারের এই চিঠিটিতে রাজ্যপালকে ‘মেরুদণ্ডহীন’ বলেও উল্লেখ করা হয়েছে।সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্ট বৈঠকে এবং মঙ্গলবার সমাবর্তনে অংশ নেওয়ার জন্য যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে রাজ্যপালের প্রবেশের চেষ্টা করার পরই এই চিঠিটি প্রকাশ করা হয়েছিল বিক্ষোভরত পড়ুয়াদের পক্ষ থেকে।

রাজ্যপালের নামোল্লেখ করে চিঠিতে শিক্ষার্থী সংগঠনের তরফে লেখা হয়েছে, “এতদ্বারা আপনাকে (জগদীপ ধনকড়ক) জানানো হচ্ছে যে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য পদ থেকে আপনাকে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংগঠন আপনাকে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যপালের পদ থেকে বঞ্চিত করারও সিদ্ধান্ত নিয়েছে।“”শুধু তাই নয়, চিঠিতে শিক্ষার্থীরা লিখেছে যে রাজ্যপালের সাধারণ জ্ঞান কম, তর্ক করার ক্ষমতা দুর্বল, ইতিহাসের বোধ শূন্য। এছাড়া ছাত্র, কর্মী ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে হিংসা উপেক্ষা করার এক অটল শক্তি রয়েছে তাঁর। তারা আরও লিখেছে যে আচার্যর সামগ্রিক চরিত্রটি ছিল মেরুদণ্ডহীন।

উল্লেখ্য, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে গত কয়েকদিন উত্তপ্ত যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিস্থিতি। এই আইনের বিরোধিতা প্রসঙ্গে রাজ্যপাল-ছাত্রছাত্রী দ্বন্দ্ব চরমে আকার নিয়েছে। মঙ্গলবারই সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে ছাত্রছাত্রীদের বিক্ষোভের মুখে পড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচ নম্বর গেট থেকে ফিরে যেতে হয় রাজ‍্যপালকে। আচর্যহীন সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ‘ইনকিলাব জিন্দাবাদ’ ধ্বনি দিয়ে, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিলিপি ছিঁড়ে পদক ও শংসাপত্র গ্রহণ করেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের স্বর্ণপদক জয়ী ছাত্রী দেবস্মিতা চৌধুরী।