দুষ্কৃতী সন্দেহে একাদশ শ্রেণীর এক ছাত্রকে গণপিটুনি দেওয়ার অভিযোগ স্থানীয়দের বিরুদ্ধে

17

বিশ্বজিৎ মণ্ডল, মালদাঃ একাদশ শ্রেণীর এক ছাত্রকে দুষ্কৃতী সন্দেহে গণপিটুনি দেওয়ার অভিযোগ উঠল স্থানীয় একদল মানুষের বিরুদ্ধে। বুধবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে ইংরেজবাজার থানার কোতোয়ালি গ্রাম পঞ্চায়েতের আড়াপুর পেট্রোল পাম্প মোড়ে। গুরুতর আহত ওই ছাত্রকে রাতেই পরিবারের লোকেরা উদ্ধার করে মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করেন। এই ঘটনায় হামলাকারী কিছু মানুষের বিরুদ্ধে ইংরেজবাজার থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন আক্রান্ত ছাত্রের পরিবার।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, আহত ছাত্রের নাম অভিজিৎ কুমার (১৮)। তার বাড়ি মালদা শহরের সুকান্তপল্লী এলাকায়। গণপিটুনিতে ওই ছাত্রের মাথা ফেটে গিয়েছে। শরীরের একাধিক জায়গায় আঘাত রয়েছে। 

আক্রান্ত ছাত্র পুলিশকে জানিয়েছেন, বুধবার তার এক বন্ধুর সঙ্গে মোটর বাইক নিয়ে বিশ্বকর্মা প্রতিমা দেখতে কোতোয়ালি এলাকায় গিয়েছিলো। ফেরার পথে বাইকের তেল শেষ হয়ে যায়। সেই সময় পেট্রোল পাম্পে তেল ভরে সে। পেট্রোল পাম্পের কাছে কিছু মানুষ জটলা পাকিয়ে ছিল। সেই জটলা এরিয়ে বাইক নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে অভিজিৎ।

কিন্তু সেই সময় দাঁড়িয়ে থাকা কিছু মানুষ ওই যুবককে দুষ্কৃতী সন্দেহ করে গাড়ি আটকায়। অতর্কিতে ব্যাপক মারধর শুরু করে। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে প্রাণে বাঁচতে অভিজিতের বন্ধু এলাকা থেকে পালিয়ে যায়। আক্রান্ত অভিজিতের ওই বন্ধুই তাদের বাড়িতে ফোন করে খবর দেয়। এরপর তার পরিবারের লোকেরা সদলবলে পেট্রলপাম্প এলাকায় ছুটে আসেন। গণপিটুনির হাত থেকে কোনরকমের অভিজিৎকে উদ্ধার করেন পরিবারের লোকেরা।

আক্রান্ত ছাত্রের পরিবারের অভিযোগ, লাঠি দিয়ে নির্মমভাবে অভিজিৎকে পেটানো হয়েছে। হঠাৎ করে কেন তাকে দুষ্কৃতী সন্দেহ করতে গেল সে সম্পর্কে কিছুই বোঝা যাচ্ছে না। যদিও এই ঘটনার পর ওই এলাকায় পুলিশ গেলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়।