ঝাড়খণ্ডে মুখ্যমন্ত্রীর শপথ অনুষ্ঠানে যাচ্ছেন মমতা

69

ওয়েব ডেস্ক, ২৫ ডিসেম্বরঃ আগামী ২৭ ডিসেম্বর ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিচ্ছেন ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা (জেএএ)কার্যকরী সভাপতি হেমন্ত সোরেন। তাঁর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে অংশ নিতে পারেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমন পরিস্থিতিতে প্রতিবেশী রাজ্যটিতে অ-বিজেপি শক্তির উত্থানে যারপরনাই খুশি মমতা।

গত মঙ্গলবার, কলকাতার বিধান সরণির বিবেকানন্দ স্ট্যাচু থেকে গান্ধী ভবনের পদযাত্রা শেষ বেলেঘাটার জনসভা থেকে মমতা বলেন, “ঝাড়খণ্ড হয়েছে লন্ডভন্ড”। একই সঙ্গে তিনি বলেন, ঝাড়খণ্ড বিধানসভা ভোটে পরাজিত করে “অহংকারী” বিজেপির জবাব দিয়েছে সে রাজ্যের মানুষ। তাঁর হুঁশিয়ারি, “কেউ যদি মনে করে দেশে একমাত্র বিজেপি থাকবে, আর কেউ থাকবে না,তা হলে ভুল করছেন। আগামী দিনে আপনারা সরকারে থাকবেন কি না, সেটা দেশের মানুষই ঠিক করবেন”।

গত সোমবার ঝাড়খণ্ড বিধানসভার ভোটগণনার দিনেও মুখ্যমন্ত্রী হেমন্তের উদ্দেশে টুইট করে জানান, “হেমন্ত সোরেন, আরজেডি ও কংগ্রেসকে জয়ের জন্য অভিনন্দন। ঝাড়খণ্ডের মানুষ তাঁদের ইচ্ছে পূরণের জন্য আপনাদের উপর আস্থা রেখেছে। ঝাড়খণ্ডের সব ভাই ও বোনেদের জন্য রইল আমার শুভকামনা। ক্যা ও এনআরসির বিরুদ্ধে বিক্ষোভের মধ্যেই সেখানে নির্বাচন হয়েছে। এই রায় জনগণের পক্ষে গিয়েছে”।

মমতার কাছ থেকে শুভেচ্ছা বার্তা পাওয়ার পর পাল্টা টুইট করে তাঁকে ধন্যবাদ জানান হেমন্তও। ক্যা এবং এনআরসি নিয়ে দেশজোড়া উত্তাল আবহের মধ্যে ঝাড়খণ্ডে বিজেপির ভরাডুবি বিরোধীদের যথেষ্ট উৎসাহ জুগিয়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই আগামী ২৭ ডিসেম্বর হেমন্তর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে মমতা-সহ অন্যান্য অ-বিজেপি মুখ্যমন্ত্রীদের উপস্থিতি প্রায় নিশ্চিত বলেই ধারণা করছে ওয়াকিবহাল মহল।