ঋণের বোঝা নিয়েও উন্নয়নের কাজ অব্যাহত, বাংলাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই লক্ষ্য মমতার

160

ওয়েব ডেস্ক, ১৬ অক্টোবরঃ দুর্গাপুজোর পর প্রথম ক্যাবিনেট বৈঠক করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরই নবান্নে বৈঠক করে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘‌এবারের পুজো কার্নিভাল বিশ্ব সেরা হয়েছে। গোটা পুজোতে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। কলকাতা পুলিশ, রাজ্যের মানুষজন এবং পুজো কমিটিগুলি ভাল কাজ করেছে।

এভাবেই ঋণের বোঝা নিয়েও উন্নয়নের কাজ অব্যাহত থাকবে। বাংলাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই লক্ষ্য। সেই সঙ্গে পরিসংখ্যান দিয়ে রাজ্য সরকার জানিয়েছে, গত আর্থিক বছরে নতুন ৯৫টি ক্ষুদ্র শিল্প পথ চলা শুরু করেছে। যার জেরে এই মুহূর্তে ক্ষুদ্র শিল্পটের সংখ্যা ৫২০। দফতরের পরিসংখ্যান বলছে, ২০১১ সালে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প ইউনিটের সমখ্যা ছিল ৩৬.৬৪ লক্ষ তা বেড়ে হয়েছে ৯০ লক্ষ।

এরপরই তাঁর সংযোজন, ৬৪ বছরে কী হয়েছে?‌ আর ৮ বছরে কী হয়েছে?‌ পরিকাঠামো ক্ষেত্রে ২৩ হাজার ৭২৭ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। যা আগের থেকে ১১ শতাংশ বেশি।’‌ বুধবার আলিপুরে মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর এই বার্তাই দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। ফলে রাজ্যে আরও উন্নয়ন যে ঘটবে তা এদিনের মন্তব্য থেকে স্পষ্ট। এদিনও তাঁর মুখে কন্যাশ্রী, সবুজ সাথী, খাদ্য সাথী প্রকল্পের কথা চলে আসে। আর এমন অনেক প্রকল্প আরও হবে বলে জানান তিনি।

একদিকে বাংলার ছেলে অভিজিৎ বিনায়ক ব্যানার্জি নোবেল পেয়েছেন। অন্যদিকে বাংলার ছেলে তথা প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি বিসিসিআইয়ের সভাপতি হয়েছেন। সেটা খুব গর্বের বিষয় বলে উল্লেখ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‌আমি অভিজিতের মায়ের কাছে যাব। সৌরভের সঙ্গে কথা হয়েছে এসএমএসে। তারপর আবার এলে কথা হবে। ও তো ঘরের ছেলে। এই দুটো ঘটনা বাংলার জন্য গর্বের।’‌