ভারতী ঘোষকে বঙ্গরত্ম সম্মান দিচ্ছে মমতার সরকার

430

ওয়েব ডেস্ক, ২০ জানুয়ারিঃ ভারতী ঘোষকে বঙ্গরত্ম সম্মান দিচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। চিরাচরিত ধারা বজায় রেখে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন মা-মাটি-মানুষের সরকার দৃষ্টান্তমূলক আরও একটি পদক্ষেপ নিতে চলেছে। সংস্কৃতি জগতের অনেক মানুষই এতদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের কাছে থেকে জীবনকৃতি সম্মান পেয়েছেন।

এবার সেই তালিকায় যুক্ত হচ্ছে ভারতীর নাম। ভারতী ঘোষকে বঙ্গরত্ম সম্মান দিচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। চিরাচরিত ধারা বজায় রেখে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন মা-মাটি-মানুষের সরকার দৃষ্টান্তমূলক আরও একটি পদক্ষেপ নিতে চলেছে। সংস্কৃতি জগতের অনেক মানুষই এতদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের কাছে থেকে জীবনকৃতি সম্মান পেয়েছেন। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হচ্ছে ভারতীর নাম।

১৯৬৮ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ৫১ বছর ধরে টেবিল টেনিস খেলার সঙ্গে যুক্ত ভারতী ঘোষ। উত্তরবঙ্গে টেবিল টেনিস খেলার জনপ্রিয়তা ও বহু তরুণ-তরুণীদের এই খেলায় উৎসাহের মূলে রয়েছেন তিনি। বর্তমানে শিলিগুড়ির দেশবন্ধু পাড়ার বাসিন্দা তিনি। বয়স বাড়লেও এখনও খেলার সঙ্গে যুক্ত তিনি। দুটি ক্লাবে তরুণ প্রজন্মকে টেবিল টেনিসের প্রশিক্ষণ দেন তিনি। উচ্ছ্বসিত ভারতী দেবী বলেন,”আমার এখনও বিশ্বাস হচ্ছে না। পুরস্কার পাব বলে টেবিল টেনিস শেখাই না। এটা ভালো লাগে তাই করি।”

মান্তু ঘোষ সহ শুভজিৎ সাহা, গণেশ কুণ্ডু, সুব্রত রায়, সঞ্জয় দে, প্রসেনজিৎ বসুর মতো জাতীয়স্তরের টেবলি টেনিস খেলোয়াড়দের প্রশিক্ষণ দিয়েছিলেন ভারতী দেবীই। নিজের মতোই উত্তরবঙ্গ থেকে একাধিক টেনিস খেলোয়াড় ভারতকে উপহার দিয়ে যাচ্ছেন তিনি। তাঁর শিষ্য-শিষ্যারা ভারতীয় টেবিল টেনিসকে উঁচুতে তুলে ধরেছেন। দেশকে তথা রাজ্যকে বহু সম্মান এনে দিয়েছেন তাঁরা। যাঁর হাত ধরে তাঁরা উঠে এসেছিলেন, এবার তাঁর সম্মানিত হওয়ার পালা। তাঁকে সম্মানিত করবে মমতার সরকার। বঙ্গরত্ন সম্মানের কথা শুনে তিনি আপ্লুত। তিনি জানান, আমার বিশ্বাসই হচ্ছে না।