ভোটার তালিকায় নির্ভুল নাম দেখে নেওয়ার আর্জি মমতার

252

ওয়েব ডেস্ক, ৩০ ডিসেম্বরঃ রাজ্যে এনআরসি ও এনপিআর হবে না। লাঘু হবে না সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনও। তবে ভোটার তালিকায় নির্ভুলভাবে নিজেদের নাম রয়েছে কিনা, তা দেখে নেওয়ার পরামর্শ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নাগরিকত্ব সংশোধিত আইন ও জাতীয় নাগরিক পঞ্জির বিরোধিতায় আজ পুরুলিয়ায় মিছিল করেন মুখ্যমন্ত্রী। মিছিল শুরুর আগে পুরুলিয়া টাউনে স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে বিজেপি ও কেন্দ্রীয় সরকারকে আক্রমণ করেন তিনি। বলেন, ‘দেশের স্বাধীনতা বিপন্ন। গণতন্ত্রের কাঠামোও বিপন্ন।’

মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, যে আন্দোলন বাংলার মাটি থেকে শুরু হয়েছিল, তা সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। তাঁর অভিযোগ,’আন্দোলনকারীদের সন্ত্রাসবাদী তকমা দেওয়া হচ্ছে।’ তা সত্ত্বেও আইন-বিরোধী কণ্ঠ রোধ করা যাবে না বলে দাবি করেন মমতা। তাঁর কথায়, ‘সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বাতিল না করা পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।’ আর সেজন্য সাধারণ মানুষকেও আন্দোলনে সামিল হওয়ার আর্জি জানান মুখ্যমন্ত্রী। নাগরিকত্ব আইনের মতো এনআরসি ও এনপিআরও বাংলায় লাগু হবে না বলে আরও একবার স্পষ্ট করে দেন তিনি। তাই অযথা রাজ্যের মানুষকে চিন্তিত না হওয়ার আর্জি জানান মমতা।

তবে ভোটার কার্ডে নির্ভুলভাবে নিজেদের নাম রয়েছে কিনা তা দেখে নেওয়ার পরামর্শ দেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর কথায়, ‘কোনও ভুল ছাড়া ভোটার কার্ডে নিজেদের নাম রয়েছে কিনা তা দেখে নেওয়ার আর্জি জানাচ্ছি। শুধু এইটুকুই করুন। আমরা একজনকেও দেশ থেকে বিতাড়িত করতে দেব না। এটা আমার শপথ।’

এদিন মিছিলের শুরু থেকেই তার সুর বেঁধে দেন মমতা। মিছিলে যেমন কাঁসর ঘন্টা হাতে মহিলাদের দেখা মিলেছে তেমনি ছিল আদিবাসী সমাজের চিরাচরিত বাদ্যযন্ত্র ধামসা ও মাদল। তবে এদিন সব থেকে বেশি নজর কেড়েছে মমতার সভা ও মিছিলে অংশ নেওয়া আমজনতার ভিড়। কাতারে কাতারে মানুষ ভিড় জমিয়েছিলেন মমতার নেতৃত্বাধীন মিছিলে। তা সে আদিবাসী হোক কি অবাঙালি কিবা বাঙালিরা। মানুষের ভিড়ে এদিন পদে পদে থমকেছে মিছিল।