ব্যাঙ্ক জালিয়াতি কাণ্ডে গ্রেপ্তার রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের ম্যানেজার

89

ওয়েব ডেস্ক, ৮ জুলাইঃ সর্ষের মধ্যেই ভূত! ১৮ কোটি টাকা জালিয়াতি কাণ্ডে গ্রেপ্তার ঘাটালের একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের ম্যানেজার। ধৃতের নাম গৌতম দত্ত। বাড়ি কলকাতার রবীন্দ্র সরোবর থানা এলাকায়। বৃহস্পতিবার তাকে ঘাটাল মহকুমা আদালতে তোলা হলে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘাটালের ওই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে জালিয়াতি ধরা পড়ে চলতি বছরের এপ্রিল মাসের গোড়ায়। জানা গিয়েছে, রাজীব বক্সি নামে এক যুবক নিজেকে গৌতম বন্দোপাধ্যায় নামে পরিচয় দিয়ে ওই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের শাখায় ফোন করে জানায় তিনি ব্যাংকের সাইবার সেলের এক উচ্চ পদস্থ কর্মী। তারপরই তিনি দফায় দফায় ব্যাংক থেকে প্রায় ১৮ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় বলে অভিযোগ। এই বিশাল অংকের পরিমান টাকা অন্য অ্যাকাউন্টে চলে যাওয়ার বিষয়টি ওই ব্যাংকের রিজিওনাল ম্যানেজারের নজরে আসে গত এপ্রিল মাসে। নজরে আসা মাত্র রিজিওনাল ম্যানেজার জয়ন্ত মণি গত আট এপ্রিল ঘাটাল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের তদন্তভার গ্রহণ করেন ঘাটালের এস ডি পি ও অগ্নিশ্বর চৌধুরী। তদন্তে নেমে তিনি প্রথমে ওই ব্যাংকের পদস্থ কর্মী শ্রীমন্ত দাসকে গ্রেপ্তার করেন। তাঁর বাড়ি ঘাটালের সুলতানপুরে। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জালিয়াতি কাণ্ডের মূল পাণ্ডা গৌতম বন্দোপাধ্যায় ওরফে রাজীব বক্সিকে গ্রেপ্তার করেন অগ্নিশ্বরবাবু।

বুধবার ব্যাংক ম্যানেজার গৌতম দত্তকে শেষ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঘাটাল থানায় ডেকে পাঠান তিনি। উত্তরে সন্তুষ্ট না হতে পেরে তাঁকেও গ্রেফতার করেন অগ্নিশ্বরবাবু। ব্যাংক জালিয়াতি কাণ্ডে মোট তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ব্যাংক সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই তিনজনে মিলে ব্যাংক থেকে দফায় দফায় প্রায় ১৮ কোটি টাকা ব্যাংক থেকে সরিয়ে নিয়েছেন। আর সমস্ত ভাউচারে সই করেছেন ব্যাংক ম্যানেজার গৌতমবাবুই। এই ঘটনায় তোলপাড় ঘাটাল।