দল করে অনেকে চাকরি হাতিয়েছে স্বীকারোক্তি তৃণমূল মহাসচিবের

4800

ওয়েব ডেস্ক, ২৭জানুয়ারি : তৃণমূল করলেই চাকরি, সরকারি চাকরিতে স্বজনপোষনের অভিযোগ আগেই উঠেছে৷ সম্প্রতি সেই অভিযোগ নতুন মাত্রা পেয়েছে শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের স্বীকারোক্তিতে ৷

তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রাক্তন সভানেত্রীর নিয়োগ ঘিরেও উঠেছে প্রশ্ন৷ অমিত শাহকে কালো পতাকা দেখিয়েও সরকারি চাকরি মিলছে বলেও অভিযোগ উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়৷
শনিবার সজনীকান্ত মহাবিদ্যালয়ের সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও অনেকে চাকরির সুযোগ পাচ্ছেন না৷ আমরা যাঁরা জিন্দাবাদ-জিন্দাবাদ বলি, তাঁদের অভ্যাস আছে, মামা-ভাইপো-ভাই সবাইকে গ্রুপ-ডি পদে ঢুকিয়ে দাও৷ ফলে যাঁরা বিপন্ন মানুষ তাঁরা যোগ্যতা থাকলেও সুযোগ পান না৷ মন্ত্রীর এই মন্তব্য নতুন করে মাত্রা পেয়েছে তৃণমূল জমানায় সরকারি চাকরিতে স্বজনপোষণের অভিযোগ৷
দিন তাঁর ভাষণে এমএ পাশ এক তরুণীকে শিক্ষা দপ্তরে অস্থান চাকরি দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন বলেও জানান৷ জানান, সবং আসার পথে  রাস্তায় চা খেতে দাঁড়িয়ে ছিলাম৷ সেখানে একটি মেয়ের সঙ্গে আলাপ হল৷ জানতে পারলাম মেয়েটি এমএ পাশ করেছে৷ পিএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে৷ মেয়েটি বলল, বহু পরীক্ষা দিলেও কোনও চাকরি মিলছে না৷ মেয়েটির মা বৃদ্ধা, দুই ভাই মহারাষ্ট্রে কাজ করে৷ স্বামী সামান্য রোজগার করে৷ কোনও রকমে সংসার চলে ওঁদের৷ দেখে আমার খারাপ লাগল৷ আমি ওই মেয়েটিকে ওএসের নম্বর বলেছি, ঘাটালে শিক্ষা দপ্তরে অস্থায়ী শিক্ষা সুপার ভাইজারের কাজ করতে৷