গুজরাতে অনেক শিক্ষক পেনশন পান না,বাংলায় এসে শিক্ষকদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন ? অমিতকে কটাক্ষ মন্ত্রী ব্রাত্য বসু

78

ওয়েব ডেস্ক, ১৯ ফেব্রুয়ারিঃ বাংলায় বিজেপি ক্ষমতায় এলে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের জন্য লাগু হবে সপ্তম বেতন কমিশন। সেইসঙ্গে শিক্ষকদের বঞ্চনা দূর করতে বিশেষ কমিটি বানাবে বিজেপি সরকার। বৃহস্পতিবার নামখানায় বিজেপির পরিবর্তন যাত্রার সূচনা করতে গিয়ে এই প্রতিশ্রুতি দেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠক করে তার বিজেপিকে তুলোধনা করল তৃণমূল৷

গুজরাতে বিজেপি সরকারের রিপোর্ট কার্ড হাতে নিয়ে এদিন তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক সম্মেলনে বসেছিলেন দলের বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসু। তিনি বলেন, ‘গুজরাত মূল বাজেটের ২ শতাংশ মাত্র বরাদ্দ করে শিক্ষাখাতে। গুজরাতে অনেক শিক্ষক পেনশন পান না। সেখান থেকে লোক এসে রাজ্যের শিক্ষকদের নিরাপত্তা নিয়ে কথা বলছেন।’

ব্রাত্যর তোপ, ‘প্রদীপের নীচে অন্ধকারের সেরা উদাহরণ গুজরাত। মহিলাদের নিয়ে কথা বলেন, সংসদে মহিলা সংরক্ষণ বিল আনেন না। বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও বলেন, বাজেটে বরাদ্দ লবডঙ্কা।’

ব্রাত্য বসু আরও বলেন, ‘আয়ুষ্মান ভারতের ২ বছর আগে চালু স্বাস্থ্যসাথী। আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পে ৪০ শতাংশ টাকা দিতে হয় রাজ্যকে। স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পে ১০০ শতাংশ টাকা দেয় রাজ্য।’ তাঁর দাবি, গুজরাতে শিশুমৃত্যুর হার উপরদিকে রয়েছে৷

কৃষক ইস্যুতেও মোদী-শাহদের সরকারকে আক্রমণ করেছেন ব্রাত্য বসু৷ তিনি বলেছেন, ‘কৃষকদের নিয়ে কথা বলছেন, ঠ্যাঙাড়ে বাহিনী এনেছেন আন্দোলন ভাঙতে। বাংলার কৃষকবন্ধু প্রকল্পে সবাই সাহায্য পায়। মুখে কেন্দ্র বলে গো-রক্ষার কথা, আসলে ভালবাসে না কৃষকদের।’

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার অমিত শাহ বলেছিলেন, ‘বাংলার আর্থিক অবস্থা এতই খারাপ যে এখানে রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা সপ্তম বেতন কমিশনের সুবিধা পান না। আমি আপনাদের বলছি, এখনে একবার ভারতীয় জনতা পার্টির সরকার গড়ে দিন, সমস্ত রাজ্য সরকারি কর্মীকে সপ্তম বেতন কমিশন দেবে আমাদের সরকার’।

এদিন শাহের মুখে শোনা যায় আদিগঙ্গায় নেমে শিক্ষামিত্রদের মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ি অভিযানের কথাও। তিনি বলেন, ‘আমি একটা ছবি দেখলাম। খালে কোমর পর্যন্ত জলে আমাদের শিক্ষকরা নিজেদের ন্যায্য দাবির জন্য লড়ছেন। আমি সমস্ত শিক্ষকদের বলছি, পশ্চিমবঙ্গে আমরা সরকার গড়তেই আপনাদের উপযুক্ত মর্যাদা দিতে কমিটির গঠন করবে বিজেপি সরকার’।

অমিত শাহের এই বক্তব্যের পরিপেক্ষিতে নিয়ে গুজরাটের শিক্ষা ব্যবস্থা ও সেখানকার শিক্ষকদের দুরাবস্তার কথা তুলে ধরেন অমিত শাহকে কটাক্ষ করেন তৃনমূল বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসু।