জলঙ্গির ঘটানায় দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি করল মীম

40

কমল মজুমদার, জঙ্গিপুরঃ জলঙ্গিতে এনআরসি ও সিএএ বিরোধী আন্দোলনে দুই জনের মৃত্যুর ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানালো অল ইন্ডিয়া মাজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন(এআইএম আইএম)।বুধবার সাংবাদিকদের সামনে ওই দলের মুর্শিদাবাদ জেলার সভাপতি আসাদুল সেখ ও সম্পাদক হান্নান শেখ জলঙ্গির ঘটানায় দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি করেন।

এর পাশাপাশি ওই ঘটনার মৃত  আলাউদ্দিন বিশ্বাসকে তাদের দলের সমর্থক বলে ঘোষণা করেন এবং এই ধরণের ঘৃণ্যতম ঘটনার জন্য তৃণমূল সরকারকে দায়ী করেন।

এআইএমআইএমের মুর্শিদাবাদ জেলার সভাপতি আসাদুল সেখ জানান,ওই দিন মুসলিম পার্সোলানল বোর্ডের ডাকে সারা ভরতজুড়ে  ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছিল। আর জলঙ্গিতে সেই ধর্মঘটে সামিল হয়েছিল নাগরিক মঞ্চ নামে একটি সংগঠন।সেখানে নানান দলের কর্মী সমর্থকের পাশাপাশি এআইএমআইএম দলের কিছু সমর্থকও ছিল।

তবে এদিন আসাদুল বাবু জোর গলায় বলেন, জলঙ্গিতে এন আরসি ও সিএএ বিরোধী আন্দোলন মিম পার্টির নেতৃত্বে হয় নি।

এরপাশাপাশি তিনি জানান, জলঙ্গিতে  মৃতদের পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার মাধ্যমে  আমরা জানতে পেরিছি ওই দিন কী ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছিল রাজ্যের শাসক দল।এই নিয়ে আসাদুল বাবুর দাবি,জলঙ্গিতে গুলি চালানো কান্ডে পুরোপুরিভাবে তৃণমূল কংগ্রেস জড়িত। এর পাশাপাশি তিনি এদিন পুলিসের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন।

অন্যদিকে এআইএমআইএম এর মুর্শিদাবাদ জেলার সাধারণ সম্পাদক হান্নান শেখ রাজ্যের শাসক দলকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করে জানান,এআইএমআইএমের দলীয় কর্মসূচিতে বাধা প্রদান করছে রাজ্য সরকার।তবে তার দাবি,শাসক দল যত বাধা প্রদান করবে,মিম পার্টি তত এগিয়ে যাবে।

এছাড়াও তিনি এদিন জানান,মুর্শিদাবাদের বেশ কিছু বড় মাপের তৃণমূল নেতা  তাদের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করছে।তারা খুব শিগগির এআইএমআইএম দলে নাম লেখাবে।এরপাশাপাশি তারা আগামী দিনে মুর্শিদাবাদে এআই এমআইএর প্রধান আসাদুদ্দীন ওয়াসি এনে জনসভা করার কথাও প্রকাশ্যে ঘোষণা করেন মিম নেতৃত্ব।