ক্যা-এর বিক্ষোভের মাঝে আজ শুরু হল বাজেট অধিবেশন, অর্থনীতি ও উন্নয়ন আলোচনা করতে চান মোদী

98

ওয়েব ডেস্ক, ৩১ জানুয়ারিঃ নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে একদিকে প্রতিবাদ অপরদিকে আজ শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে সংসদের বাজেট অধিবেশন। এদিন সকালে রাষ্ট্রপতি সংসদের উভয় কক্ষে ভাষণের মধ্যে দিয়ে এই অধিবেশনের সূচনা করবেন। সংসদের বাজেট অধিবেশনে অর্থনীতি ও উন্নয়ন নিয়ে সবিস্তার আলোচনা হবে বলে আশাপ্রকাশ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এ দিকে, অধিবেশন শুরুর আগে এ দিন সংসদের বাইরে বিক্ষোভ দেখিয়েছে কংগ্রেস-সহ বিরোধী দলগুলি।

অধিবেশন শুরুর দিন সংসদে ঢোকার আগেই মোদি বলেন, “আমাদের অধিবেশনে নজর থাকা উচিত, কীভাবে বর্তমান বিশ্বের আর্থিক পরিস্থিতির সুবিধা তুলতে পারবে ভারত,তা নিশ্চিত করা।” এই দশকের প্রথম বাজেট। তাই মোদি বলছেন,”আমাদের উচিত আলোচনার মাধ্যমে এই দশকের জন্য শক্ত অর্থনৈতিক ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা।” কিন্তু, মোদির এই আলোচনার ডাকে কি সাড়া দেবে বিরোধীরা? তা নিয়ে সংশয় থাকছেই।

বাজেট অধিবেশনের জন্য বৃহস্পতিবারই সর্বদলীয় বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানে তিনি বিরোধী দলগুলিকে আবেদন করেছেন বাজেট অধিবেশনে ইতিবাচক আলোচনা করতে। যাতে দেশ আর্থিকভাবে এগিয়ে যেতে পারে, তার জন্য সরকার খোলা মনে সবরকম আলোচনা করতেই প্রস্তুত।

তবে এই অধিবেশনে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে কোনও আলোচনা হবে না বলেই মনে করা হচ্ছে। কারণ, সংসদীয় মন্ত্রী প্রহ্লাদ যোশী জানিয়েছেন, এই বিল নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে, তারপরেই তা সংসদের উভয় কক্ষে পাশ হয়েছে। ফলে এই নিয়ে নতুন করে আলোচনার কিছু নেই।

শুক্রবার বাজেট অধিবেশ শুরুর আগে নমো বলেন, ‘সংসদের উভয় কক্ষে অর্থনীতি নিয়ে দীর্ঘতর ভালো মানের আলোচনা হোক, এটাই চাই। আমাদের অধিবেশনের মূল নজর থাকা উচিত অর্থনৈতিক বিষয়ে। এ ছাড়াও বিশ্বের বর্তমান আর্থিক অবস্থা ভারত কী ভাবে সুবিধে নিতে পারে, তা নিয়ে আলোচনা দরকার।’

এটা ২০২০ ও এই দশকের প্রথম অধিবেশন এ কথা মনে করিয়ে দেয় মোদী বলেন, এই বাজেটেই গোটা দশকের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপিত হোক। পাশাপাশি তাঁর দাবি, ‘দলিত ও মহিলারা – যাঁরা নিয়মিত এক্সপ্লয়টেশনের শিকার হয়, তাঁদের ক্ষমতায়নে সরকার সচেষ্ট। সেই চেষ্টা আমরা চালিয়ে যেতে চাই।’

প্রধানমন্ত্রী যখন বাজেট অধিবেশনের প্রাক্কালে বক্তব্য রাখছেন, তখনই সংসদের বাইরে বিক্ষোভ দেখান কংগ্রেস ও অন্যান্য বিরোধীরা। সংসদ ভবন প্রাঙ্গণে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরোধিতায় বিক্ষোভ দেখানো হয়। কালো কাপড় বেঁধে স্লোগান দিতে থাকেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধী।লেখা শনিবার সংসদে বাজেট পেশ করবেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন।