প্রাকৃতিক গ্যাস সিএনজি আনার ব্যাপারে জোর তৎপরতা শুরু, জমিজট দ্রুত কাটানোর ব্যাপারেও জেলাশাসকদের নির্দেশ দিয়েছে নবান্ন

97

ওয়েব ডেস্ক, ১২ জুলাইঃ পরিবেশবান্ধব জ্বালানি, প্রাকৃতিক গ্যাস সিএনজি আনার ব্যাপারে জোর তৎপরতা শুরু। অক্টোবরের মধ্যেই যাতে পাইপলাইন বসানো যায় সেব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়া শুরু করেছে নবান্ন। জমিজট দ্রুত কাটানোর ব্যাপারেও জেলাশাসকদের নির্দেশ দিয়েছে নবান্ন। শনিবার মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী কেন্দ্রীয় সংস্থা গেইল ও রাজ্যের ১০টি জেলার জেলাশাসকদের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন। এদিকে একাধিক জেলা শাসক কেন্দ্রীয় সংস্থার গেইলের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন। উত্তর ২৪ পরগনা জেলা প্রশাসন জমি সংক্রান্ত কিছু সমস্যার কথা উল্লেখ করেছেন। মূলত আমডাঙা, ব্যারাকপুর সহ বিভিন্ন এলাকায় জমি সংক্রান্ত কিছু সমস্যার কথা জানান উত্তর ২৪ পরগনার জেলাশাসক। প্রায় ৩০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে পাইপলাইন বসবে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে।

এদিকে ২০২২ সালের মধ্যে এই প্রকল্প চালু করার ব্যাপারে লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করেছে গেইল। তবে প্রশাসনের একাংশের ধারনা, আগামী লোকসভা ভোট ২০২৪য়ের আগে এই কাজ শেষ করা সম্ভব নয়। এদিকে ইতিমধ্যেই দুর্গাপুর পর্যন্ত এই পাইপলাইনের কাজ কিছুটা হয়েছে। কলকাতাতেও আসবে এই লাইন। শিলিগুড়ি হয়ে এই পাইপলাইন উত্তরপূর্ব ভারত পর্যন্ত যাবে। তবে এই পাইপলাইনের মাধ্যমে সরবরাহ করা গ্যাস শুধু রান্নার গ্যাস হিসাবে নয়, যানবাহনের জ্বালানি হিসাবেও ব্যবহার করা যাবে। কলকাতায় সিএনজি  স্টেশন চালুর উদ্যোগও নেওয়া হচ্ছে।

এদিকে গেইল কর্তাদের জানিয়েছেন শুধু দিল্লি থেকে চিঠি লিখে সহযোগিতা করা হচ্ছে না বললে হবে না। জেলাশাসকদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখুন। তাঁদের অনেক কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হয়। মুখ্যমন্ত্রী চান স্বচ্ছতার সঙ্গে দ্রুত এই প্রকল্প রূপায়ন করতে হবে।