অর্ধনগ্ন করে শারীরিক অত্যাচার করেছে পুলিশ, জামিন পেয়ে কেঁদে জানালেন সাংবাদিক সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়

2970

ওয়েব ডেস্ক, ২০ অক্টোবরঃ জামিনে মুক্ত হলেন কংগ্রেস নেতা তথা বর্ষীয়ান সাংবাদিক নেতা সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়। রবিবার সকালে পুরুলিয়া জেলা আদালত তাঁকে জামিন দেয়।  গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আগরপাড়ার একটি বাড়ি থেকে সন্ময়কে গ্রেফতার করা হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তথা তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্বের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। অভিযোগ, সেদিন সন্ময়কে গ্রেফতার করতে আসা পুলিসের সঙ্গে ছিল তৃণমূল কর্মীরাও। মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগে ধৃত কংগ্রেস নেতা সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায় গ্রেফতারি নিয়ে গত কয়েক দিনে প্রবল তোলপাড় হয়েছে রাজ্য রাজনীতি।গত শুক্রবার তাঁকে পুরুলিয়া আদালতে পেশ করা হলে প্রথমে পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছিলেন বিচারক।পরে এদিন অবশ্য তাঁর জামিন মঞ্জুর করা হয়।   

জামিন পাওয়ার পর সংবাদমাধ্যমে কংগ্রেস নেতা তথা বর্ষীয়ান সাংবাদিক সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘দু’ দিন আমাকে শারীরিক অত্যাচার করা হয়েছে৷ প্রায় অর্ধনগ্ন করে নিম্নাঙ্গে মারা হয়েছে৷ চড় কিল ঘুষি মেরে আমার উপর অত্যাচার করা হয়৷ আমার সহকর্মীদের সহযোগিতায় প্রাণে বেঁচে ফিরেছি৷’ বলতে বলতে কেঁদে ফেলেন সন্ময়৷ তিনি আরও বলেন, ‘‘পুলিশের থার্ড ডিগ্রি কি এতদিন শুনেছিলাম৷ কিন্তু, গত দু’দিন ধরে আমার উপর যা হয়েছে, তা ভাষায় প্রকাশ যাবে না৷ শুধু প্রাণে বেঁচে ফিরেছি৷’তাঁর আরও দাবি, আমি যদি পিসি ভাইপোর বিরুদ্ধে কিছু বলে থাকি, তাহলে তো মানহানি মামলা হতে পারত৷ কিন্তু, এটা কী হল?’’

এদিন সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়ের জামিনের পর প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র বলেন, “সত্যের জয় হল।” তিনি আরও বলেন, “আমরা শুরু থেকেই আদালতের উপর ভরসা রেখেছিলাম।” তার সঙ্গে অবশ্য সোমেন মিত্র এটাও জানিয়ে দেন যে এখনই তাঁদের শাসক দলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ থামছে না। তিনি জানান, সন্ময়ের উপর পুলিশের সঙ্গে তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা আক্রমণের প্রতিবাদে আইনি পথে লড়া হবে। সেই সঙ্গে বাম-কংগ্রেস হাত মিলিয়ে এগনোরও বার্তা দিলেন সোমেন। তিনি বললেন, “রাজ্য সরকারের গণতন্ত্র হত্যার বিরুদ্ধে বামপন্থী দলগুলির সঙ্গে সারা রাজ্যে পথে নেবে লড়াই হবে।”