বাংলায় শিক্ষানীতিতে ব্যাপক বদল, জানুন বিস্তারিত

0
39

খবরিয়া ২৪ নিউজ ডেস্ক, ৮ অগাস্ট, কলকাতাঃ কেন্দ্রে নয়া শিক্ষাবর্ষ থেকে চালু হয়েছে জাতীয় শিক্ষানীতি। তবে বাংলা যে সেই জাতীয় শিক্ষানীতি মানছে না, তা আগেই বিধানসভায় স্পষ্ট করে দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। কেন্দ্রের শিক্ষানীতি পুরোপুরি না মেনে পৃথক শিক্ষানীতি তৈরি করছে রাজ্য সরকার।

রাজ্যের শিক্ষানীতি কেমন হবে তা নিয়ে চূড়ান্ত অনুমোদন হয়ে গেল রাজ্য মন্ত্রীসভায়। ঢেলে সাজানো হল প্রাক-প্রাথমিক স্তর থেকে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় স্তর পর্যন্ত শিক্ষানীতি। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে আলাদাই শিক্ষানীতির খসড়া তৈরি করেছে রাজ্য।

রাজ্যের শিক্ষাব্যবস্থা বর্তমানে ৪+৪+২+২ নীতিতে চলছে। ৫+৩+৪ ফরম্যাট আনতে চায় জাতীয় শিক্ষানীতি। মাধ্যমিক পরীক্ষা তুলে দেওয়ার কথা ভাবছে জাতীয় শিক্ষানীতি। কিন্তু রাজ্য সরকার এই প্রস্তাবে রাজি নয়। তার বদলে রাজ্য চাইছে, চারটে সেমিস্টার হোক উচ্চমাধ্যমিক স্তরে। অর্থাৎ একাদশে দুটি এবং দ্বাদশে দুটি সেমিস্টার। দ্বাদশ শ্রেণীর সেমিস্টারের ভিত্তিতে হবে নম্বর নির্ধারণ।

বাংলা, ইংরেজি, হিন্দিকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে রাজ্য শিক্ষানীতিতে। রাজ্যের মত, উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে দ্বিভাষিক পঠনপাঠন করা যেতে পারে। স্টাডি মেটারিয়াল, যা আছে, তার ভিত্তিতেই হবে। দেখা যাচ্ছে, অনেক ছাত্রই ইংরাজিতে সড়গড় নয়। সেক্ষেত্রে ‘বাই লিঙ্গুয়াল’ হলে পড়ুয়াদেরই সুবিধা হবে। পাশাপাশি বাংলাকেও বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। অর্থাৎ যারা বাংলা মাধ্যম স্কুলে পড়ছে, তারা তো বাংলা শিখছে।

যারা হিন্দি মাধ্যম স্কুলে পড়বে, তারা হিন্দির পাশাপাশি ‘থার্ড ল্যাঙ্গুয়েজ’ হিসাবে বাংলা পড়বে। যারা ইংরাজি মাধ্যম স্কুলে পড়ছে, তারাও ‘থার্ড ল্যাঙ্গুয়েজ’ হিসাবে বাংলা, হিন্দি অথবা সংস্কৃত নেবে। মূলত বাংলাকে জোর দেওয়ার জন্যই এই সিদ্ধান্ত। এত দিন পর্যন্ত উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় পার্ট ওয়ান থাকত MCQ। পার্ট টু বিস্তারিত প্রশ্ন। এবারের রাজ্য শিক্ষানীতিতে MCQ-এর সংখ্যা আরও বাড়ানো হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here