আক্রান্তদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে দিতে নয়া নির্দেশিকা স্বাস্থ্যভবনের

139

ওয়েব ডেস্ক, ২ আগস্টঃ হু হু করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা। আক্রান্ত অনেকেই হচ্ছেন। তার মধ্যে থেকে সুস্থও হয়ে উঠছেন অনেকে। মৃত্যুর হার সত্যিই খুব খুব কম। কিন্তু তারপরেও এটাও সত্যি যে যারা সুস্থ হয়ে উঠছেন মারণ ভাইরাসের প্রকোপ থেকে তাঁরা চট করে সুস্থ জীবনে ফিরে যেতে পারছেন না। কিন্তু সুস্থ হয়ে যাওয়ার পর একজন আক্রান্তকে কোন কোন নিয়ম মেনে হাসপাতাল কিংবা সেফ হোম থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে, তারই নয়া নির্দেশিকা জারি করল স্বাস্থ্যভবন।

নয়া নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, রাজ্যের সব সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল, কোয়ারেন্টিন সেন্টার ও সেফ হাউসগুলির পরিচালন কর্তৃপক্ষকে যাতে সেখান থেকে কাউকে ছেড়ে দেওয়ার আগে যেন করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট তাঁকে দেওয়া হয়। শনিবার জারি হল নতুন আরেক নির্দেশিকা। সেখানে বলে দেওয়া হল করোনা ধরা পড়ার ৭ দিন অতিক্রম হওয়ার পরে যদি আক্রান্ত ব্যক্তির আরও ৩ দিন জ্বর বা অন্য কোনও উপসর্গ না থাকে, তবে কোনও টেস্ট ছাড়াই হাসপাতাল, কোয়ারেন্টিন সেন্টার বা সেফ হোম থেকে তাঁকে ছুটি দিয়ে দেবেন চিকিৎসকরা।

তবে সুস্থ হয়ে ওঠার পর সত্যিই কী স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারছেন করোনা আক্রান্তরা? রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শোনা যাচ্ছে একই অভিযোগ। আতঙ্কের জেরে অনেকেই অজান্তে করোনা রোগীকে করে দিচ্ছেন কার্যত ‘একঘরে। তার ফলে রীতিমতো সামাজিক হেনস্তার শিকার হতে হচ্ছে তাঁদের। কোনও করোনা রোগীর সঙ্গে ‘দুর্ব্যবাহার’ না করার কথা রাজ্য সরকারের তরফে বারবার প্রচার করা হচ্ছে। তবে তা সত্ত্বেও করোনা রোগীকে হেনস্তা রোখা যাচ্ছে না।