১৭৫ কি.মি বেগে বল করে শোয়েবকে ছাপিয়ে গেলেন ‘নতুন মালিঙ্গা’

613

ওয়েব ডেস্ক, ২১ জানুয়ারিঃ শ্রীলঙ্কার পেসার মাথিসা পাথিরানা তাঁর বলের গতিতে নজর কেড়ে নিলেন বিশ্ব ক্রিকেটের।আজ পর্যন্ত ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বোচ্চ গতিবেগে বল করেছেন পাকিস্তানের পেসার শোয়েব আখতার।ইতিহাস সৃষ্টি করা তাঁর বলের গতিবেগ ছিল ১৬১.৩ কিলোমিটার।দীর্ঘ বহু বছর কেউ সেই রেকর্ডের আশেপাশে যেতে পারেনি।শন টেট, মিচেল স্টার্ক, ব্রেট লি-দের মতো কিংবদন্তিরাও যেটা করে দেখাতে পারেননি, সেটাই করে দেখালেন লাসিথ মালিঙ্গার দেশের এক আনকোরা পেসার।

দক্ষিণ আফ্রিকায় চলছে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ।রবিবার সেই বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে খেলতে নেমেছিল ভারত।ক্রিজে উল্টো দিকে তখন নীল জার্সিতে ভারতীয় ব্যাটসম্যান। বল হাতে ছুটে আসছেন লঙ্কার পেসার মাথিসা পাথিরানা। বাঁ-হাতি ভারতীয় ব্যাটসম্যানকে একটি বল করলেন তিনি। ব্যাটসম্যানের কাঁধের পাশ দিয়েই বেরিয়ে উইকেট কিপারের দস্তানায় জমা পড়ল বল। ওভারের প্রথম বাউন্সারের পাশাপাশি ওয়াইড সিগন্যাল দেন অ্যাম্পায়ার।বিস্ময় শুরু এরপরই।টিভিতে দেখা যায়, ওই বলের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১০৮ মাইল।কিলোমিটারের হিসেবে যা ১৭৫!

এরপর শ্রীলঙ্কার পেসার মাথিসা পাথিরানা রাতারাতি চলে আসেন শিরোনামে। ওই বলের ভিডিয়ো আগুনের গতিতে ভাইরাল হতে থাকে সোশ্যাল মিডিয়ায়।কিন্তু কয়েন ঘণ্টার মধ্যেই মোহভঙ্গ হয় সকলের।চ্যানেল কর্তৃপক্ষের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়, কিছু প্রযুক্তিগত গণ্ডগোলের কারণে ওই বলের গতিবেগ ঘণ্টায় ১৭৫ কিলোমিটার দেখানো হয়েছে।আদতে ওই বলের গতিবেগ ঘণ্টায় ১৭৫ কিলোমিটার ছিল না।ফলে বিশ্বের দ্রুততম বলের বিশ্বরেকর্ড শোয়েবের হেফাজতেই সুরক্ষিত থাকছে। ১৬১.১ কিলোমিটার গতিবেগে বল করে দ্বিতীয় জায়গাতেই থাকছেন অস্ট্রেলিয়ার শন টেট ও ব্রেট লি।