লন্ডন নয়, কলকাতা করাচী হওয়ার পথে এগোচ্ছে, ক্যা এর বিরুদ্ধে যে ছাত্র আন্দোলন করছে তাঁরা ছাত্র নয়ঃ সায়ন্তন বসু

85

ওয়েব ডেস্ক, ২৯ জানুয়ারিঃ লন্ডন নয়, কলকাতা করাচী হওয়ার পথে এগোচ্ছে, এমনই মন্তব্য বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসুর। সিএএ-র বিরুদ্ধে ছাত্র নাম দিয়ে কলকাতায় যারা আন্দোলন করছে, তাঁরা কেউ ছাত্র নয়। তার চিরকূট। বিজেপি লোকজন কয়েক ঘা দিলেই পালিয়ে যাবে। এমনটাই মন্তব্য রাজ্য বিজেপির হেভিওয়েট নেতা সায়ন্তন বসুর। বিজেপি মেনে নিলেও বেশিদিন তা চলতে পারে না, মন্তব্য করেছেন তিনি। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে দেশের অন্যান্য অংশের মতো কলকাতাতেও তুমুল প্রতিবাদ-আন্দোলন চলছে। বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দল থেকে শুরু করে ছাত্রসমাজের একটি বড় অংশ সিএএ ইস্যুতে বিজেপি বিরোধিতায় সামিল। এবার সিএএ বিরোধী আন্দোলনকারীদেরই নিশানা করলেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু।

শুরু থেকেই সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে কেন্দ্র বিরোধিতায় সরব তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সিএএ বাতিলের দাবিতে একটানা আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সিএএ ইস্যুতে বিজেপি বিরোধী সব দলকেও একজোট হয়ে আন্দোলনে নামারও বার্তা দিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো৷ একইভাবে কেরল, রাজস্থান, পঞ্জাবের পথে হেঁটে রাজ্য বিধানসভাতেও সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বিরোধী প্রস্তাব পাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এরই পাশাপাশি সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বিরোধিতা করায় সায়ন্তনের রোষের মুখে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়ও। সায়ন্তনের দাবি সিএএ বিরোধিতায় মমতার সভায় এখন ভিড় কমছে। একইসঙ্গে শহর কলকাতায় সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বিরোধী আন্দোলন মাথাচাড়া দেওয়ায় কটাক্ষের সুরে সায়ন্তন আরও বলেন, ‘লন্ডন নয়, ক্রমশই করাচি হওয়ার পথে এগিয়ে চলেছে কলকাতা৷’

একদিকে, সিএএ ইস্যুতে কেন্দ্র বিরোধিতা করে চলেছে শাসক তৃণমূল-সহ বাম ও কংগ্রেস। অন্যদিকে, মোদী-শাহদের নির্দেশে দেশের অন্যান্য রাজ্যগুলির পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গেও বাড়ি-বাড়ি ঘুরে সিএএ-র সমর্থনে প্রচার চালাচ্ছে গেরুয়া শিবির। সিএএ তৈরির জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে শুভেচ্ছা জানিয়ে জেলায় জেলায় চলছে বিজেপির অভিনন্দন যাত্রা। নাগরিকত্ব আইনের পক্ষে সওয়াল করে চলার পাশাপাশি সিএএ বিরোধী আন্দোলনকারীদেরও নিশানা করছেন একের পর এক বিজেপি নেতা।