এনআরসি আতঙ্ক, প্রখর রৌদ্রে রেশন কার্ডের লাইনে দাঁড়িয়ে মৃত্যু

51

ওয়েব ডেস্ক, ২০ সেপ্টেম্বরঃ রাজ্যজুড়ে এনআরসির আতঙ্ক। ইতিমধ্যেই প্রাণ হারিয়েছেন দু’জন। এরইমধ্যে নতুন বিপদ হয়ে দেখা দিল ডিজিটাল রেশন কার্ড। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার প্রতিটি ব্লকের বিডিও অফিসগুলিতে ডিজিটাল রেশন কার্ড পেতে বা ডিজিটাল রেশন কার্ড সংশোধনের জন্য দীর্ঘ লাইন। শুক্রবার বালুরঘাট বিডিও অফিসে রেশন কার্ড করাতে এসে প্রখর রৌদ্রে লাইনে দাঁড়িয়ে মৃত্যু হল এক ব্যক্তির।

প্রত্যক্ষদর্শী মোক্তার মন্ডল জানান, মৃত ওই ব্যক্তির নাম মন্টু সরকার। মৃত ব্যক্তির বাড়ী বালুরঘাট ব্লকের জলঘর গ্রাম পঞ্চায়েতের পলাশডাঙ্গা এলাকায়। বেশ কয়েকদিন ধরেই মন্টু মন্ডল ডিজিটাল রেশন কার্ড করার জন্য বালুরঘাটের বিডিও অফিসে ঘুরপাক খাচ্ছিলেন। এদিনও ডিজিটাল রেশন কার্ড করানোর জন্য মন্টু মন্ডল সকাল ৭ টা থেকে বালুরঘাটের বিডিও অফিসের বাইরে লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন।

এরপর বেলা গড়াতেই প্রখর রৌদ্র উপেক্ষা করে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকাকালীন হঠাৎ মন্টু মন্ডল মাথা ঘুরে পড়ে যান। ঘটনার পর বিডিও অফিসে থাকা সাধারণ মানুষেরা মন্টু মন্ডলকে উদ্ধার করে বালুরঘাটে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করে। ঘটনার পর বালুরঘাট থানার পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। এদিনের এই ঘটনার পর বিডিও অফিসে ডিজিটাল রেশন কার্ড করানোর কাজে আসা একাধিক সাধারণ মানুষ ডিজিটাল রেশন কার্ড তৈরীর এই প্রক্রিয়া বিষয়ে প্রশ্ন তুলতে আরম্ভ করেছেন।

বিডিও অফিসে ডিজিটাল রেশন কার্ড করানোর জন্য আসা প্রবীন ব্যক্তি নগেন বসাক জানান, তিনি রক্তচাপজনিত সমস্যায় ভুগছেন দীর্ঘদিন ধরে। তার মতে ডিজিটাল রেশন কার্ড করার ফর্ম গ্রাম পঞ্চায়েত অফিস বা ডিলারদের কাছ থেকে পাওয়া গেলে তাদেরকে এরকম হয়রানি হতে হত না। এদিনের এমন ঘটনা চাউড় হতেই বালুরঘাট জুড়ে শোরগোল পড়ে গেছে যে একদিকে প্রখর রৌদ্রে লাইনে দাঁড়ানো।

অন্যদিকে অসামের মত পশ্চিমবঙ্গে যদি এনআরসি চালু হয় তাহলে যাতে কোন আইনি ঝামেলায় না পড়তে হয় তার জন্য শারীরিক অসুস্থতা সত্ত্বেও স্বল্প সময়ের মধ্যে ডিজিটাল রেশন কার্ড পেতে লাইনে দাঁড়িয়ে মৃত্যু হয়েছে ওই ব্যক্তির।