উত্তর দিনাজপুরে এনআরসি আতঙ্ক, ভোটার লিষ্ট, রেশনকার্ড সংশোধনে লম্বা লাইন

12

তুষার কান্তি বিশ্বাস, উত্তর দিনাজপুরঃ এনআরসি আতঙ্ক এখন চোপড়ার বাসিন্দাদের মধ্যে চেপে বসেছে৷ সব মানুষ, ভোটার লিষ্ট, রেশনকার্ড এ নাম তোলা ও সংশোধন করা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। চোপড়ার ব্লক অফিসে খাদ্য দপ্তরের ঘরের সামনে সাধারণ মানুষের লম্বা লাইন দেখলেই বোঝা যায় তারা কতটা ব্যস্ত, কতটা আতঙ্কিত।

মঙ্গলবারের এই ছবির মতো প্রতিদিনই সাড়ে দশটা বাজলেই রেশন কার্ডে নিজেদের নাম তোলা বা নাম বাবার নাম সংশোধন করতে মানুষের ভীর উপচে পড়ছে। আর এই সবকিছুই যে এন.আর.সি র জন্য তা বলাই বাহুল্য

রেশনকার্ড সংশোধন করতে আসা এক সাধারন মানুষরা বলেন, এনআরসি আতঙ্কে তারা ডিজিটাল রেশন কার্ডে নাম তোলা বা নাম সংশোধন এর কাজ সেরে ফেলার জন্য ভীর করছেন। কিন্তু খাদ্য দপ্তরের সাব ইনস্পেকটর ইমানুর রহমান ক্যামেরার সামনে বলছেন, এই ডিজিটাল কার্ড করার জন্য স্পেশাল ক্যাম্প চলছে আর তাই জন্যই এই ভীর।

ইসলামপুরের মহকুমা শাষক অলঙ্কৃতা পান্ডে সরকারী কাজে বাইরে থাকায় টেলিফোনে জানিয়েছেন, আমরা ডিজিটাল রেশন কার্ডের জন্য স্পেশাল ড্রাইভ দিয়েছি। যা পশ্চিমবঙ্গ জুড়েই চলছে। আর সাধারন মানুষ সেই কারনেই নিজেদের নাম সংশোধন বা নাম তুলতে ভীর করছেন। এর সাথে এনআরসি র কোনো যোগ নেই।

‘কিন্তু ভীরে আসা মানুষরা দাবী করছে তারা এনআরসি আতঙ্কে রেশন কার্ড ঠিক করাতে ভীর করছেন।’ সাংবাদিকের এই কথার প্রেক্ষিতে মহকুমা শাষক বলেন, হয়তো কোথাও রিউমার ছড়িয়ে থাকতে পারে।