সাগর রানাকে খুনের অপরাধে অবশেষে গ্রেপ্তার অলিম্পিক পদকজয়ী কুস্তিগীর সুশীল কুমার

265

ওয়েব ডেস্ক, ২৩ মেঃ অবশেষে পুলিশের জালে অলিম্পিকে পদকজয়ী কুস্তিগীর সুশীল কুমার। সাগর রানাকে খুনের অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করল দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেল। সঙ্গে ছিলেন তার অন্তরঙ্গ বন্ধু অজয় কুমার। শনিবার দু’জনকেই গ্রেফতার করা হয়।

কিছু দিন আগে উত্তরপ্রদেশের মিরাটের টোল ট্যাক্সে তাঁকে দেখা গিয়েছিল। সিসিটিভি-তে ধরা পড়েছিল তাঁর ছবি। তাঁকে হন্যে হয়েই খুঁজছিল দিল্লি পুলিশ। কিন্তু সুশীল পালিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন। অবশেষে ধরা পড়লেন পুলিশের কাছে ধরা পরতে হল তাকে।

দু’বারের অলিম্পিক্স পদকজয়ী ভারতের সুশীল কুমারের বিরুদ্ধে ২৩ বছরের কুস্তিগীর সাগর রানাকে খুনের অভিযোগ রয়েছে। ঘটনাটি ৫ মে ছত্রসাল স্টেডিয়ামে ঘটেছিল। খুন, অপহরণ এবং অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের জন্য সুশীলের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয় তার বিরুদ্ধে।
এই ঘটনার পরই আত্মগোপন করেন সুশীল, তাঁর বিরুদ্ধে লুক-আউট নোটিশ জারি করা হয়েছিল। এমন কী তাঁকে খোঁজ দেওয়ার জন্য দিল্লি পুলিশ ১লক্ষ টাকার পুরস্কারও ঘোষণা করে।

মৃত সাগর দিল্লি পুলিশের একজন হেড কনস্টেবলের ছেলে। প্রাথমিক ভাবে পার্কিং নিয়ে বচসা থেকেই ঝামেলার সূত্রপাত বলে শোনা গিয়েছিল। তবে তদন্তে উঠে এসেছে অন্য তথ্যও। সম্পত্তি সংক্রান্ত বিষয়ও নাকি এর সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে। এমনও শোনা যাচ্ছে, শুধু হাতাহাতিতেই বিষয়টি থেমে থাকেনি। গুলিও চালানো হয়েছিল।

পরবর্তিতে, সুশীল প্রথমেই নিহত সাগর এবং আহত একজনকে তাঁদের আখড়ার কেউ নন বলে দবি করেছিলেন। তাঁদের বহিরাগত বলে উল্লেখ করেছিলেন। এতেই সন্দেহ তৈরি হয়। পরে তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন সুশীলও। শেষমেশ জানা যায়, তিনিই নাকি আসল অপরাধী।