ফেসবুকে নিশীথকে বাংলাদেশের গাইবান্ধার কৃতি সন্তান বলে দাবি, জন্মস্থান নিয়ে তর্জা তুঙ্গে

1886

কোচবিহার, ১০ জুলাইঃ সদ্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সভায় জায়গা পাওয়া কোচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামানিকের জন্মস্থান নিয়ে সামাজিক মাধ্যম তোলপাড় হতে শুরু করেছে। আজ কোচবিহারের প্রাক্তন সাংসদ তথা তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি পার্থ প্রতিম রায় ফেসবুকে ‘পূজার মেলা’ নামে একটি পেজ শেয়ার করে লিখেছেন, “একি কান্ড!  পূজার মেলা নামে একটি ফেসবুক পেজ রীতিমতো কোচবিহারের সাংসদ তথা প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিককে বাংলাদেশের গাইবাবান্ধার কৃতি সন্তান বলে সম্বোধন করেছেন। আমার স্পষ্ট কথা বিষয়টি ক্লিয়ার হওয়া দরকার তিনি ভারতের কোচবিহারের ভেটাগুড়ির কৃতি সন্তান নাকি বাংলাদেশের গাইবান্ধার কৃতি সন্তান। অন্যথায় এই ফেসবুক আইডির বিরুদ্ধে সাংসদ মামলা করুন। নাহলে অনেক প্রশ্ন উঠবে ধীরে ধীরে। এন.আর.সি,সি.এ.এ ইত্যাদি ইত্যাদি।।” এর পরেই বিষয়টি সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হতে শুরু করে।

কোচবিহার রাজবংশী অধ্যুষিত এলাকা। এই লোকসভা কেন্দ্রটি তপশিলি জাতি ভুক্তদের জন্য সংরক্ষিত। মূলত প্রত্যেক লোকসভা ও বিধানসভা নির্বাচনে রাজবংশী ইস্যু মারাত্মক ভাবে কাজ করে থাকে। ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে গ্রেটার কোচবিহারের একাংশের নেতা অনন্ত রায় মহারাজ যেমন বিজেপির পক্ষে প্রচারে অংশ নিয়েছেন, তেমনি অন্য একটি গ্রেটার কোচবিহার গোষ্ঠীর নেতা বংশী বদন বর্মন রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষে ছিলেন। শেষ পর্যন্ত জয়ী হন বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামানিক। তারপর থেকেই তৃণমূল কংগ্রেসের অনেক নেতাই অভিযোগ করে আসছেন নিশীথ প্রামানিক কোচবিহারের রাজবংশী সম্প্রদায়ের লোক নন। সেই নিয়ে ব্যাপক রাজনৈতিক তর্জাও হয়েছিল। কিন্তু কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র দফতরের প্রতিমন্ত্রী হওয়ার পর বাংলাদেশের একটি ফেসবুক পেজ থেকে কোচবিহারের সাংসদকে বাংলাদেশের গাইবন্ধা জেলার পশালবাড়ি থানার হরিনাথপুর গ্রামের কৃতি সন্তান বলে দাবি করায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

নিশীথ প্রামানিককে নিয়ে বিতর্ক এই প্রথম নয়, জন্ম স্থান নিয়ে বিতর্কের পাশাপাশি শিক্ষাগত যোগ্যতা, ডাকাতি সহ বিভিন্ন মামলার প্রসংগ সামনে আসায় বহুবার বিতর্কের মুখে পরেছেন তিনি। যদিও তৃণমূল জেল সভাপতির ওই ফেসবুক পোষ্ট নিয়ে নিশিথ প্রামানিক বা বিজেপির  কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায় নি।