সেতুর গার্ডওয়াল ভেঙ্গে অবৈধ দোকান গড়ার অভিযোগ এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে

152

বিজয় চন্দ্র বর্মন,জামালদহঃ পাকা সেতুর গার্ডওয়াল ভেঙ্গে সম্পূর্ণ বেআইনি ভাবে দোকান নির্মানের অভিযোগ উঠলো এক ব্যাক্তির বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে, মেখলিগঞ্জ ব্লকের জামালদহ এলাকায়। সুটঙ্গা নদীর ওপর পাকা সেতুর  গার্ডওয়াল ভেঙ্গে অবৈধ নির্মানের অভিযোগ সংশ্লিষ্ট ওই কর্তৃপক্ষের।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, বাবলু সাহা নামে এক ব্যাক্তি প্রশাসনকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে সেতুর গার্ডওয়াল ভেঙ্গে অবৈধ দোকান নির্মান করেছেন। তারা আরও জানান, এইভাবে সেতুর দুই দিক থেকে গার্ডওয়াল ভেঙ্গে ফেলায় সেতুর সংযুক্ত পিলার আলগা হয়ে গেছে। যার ফলে যে কোন সময় সেতুটি ভেঙ্গে পড়তে পারে বলেও অভিযোগ তাঁদের। শুধু তাই নয়, এই সেতু উপর প্রতিনিয়ত প্রায় হাজার খানেক মানুষের যাতায়াত। যে কোনও সময় যদি কোনও বিপত্তি ঘটে যায় তাহলে বিনাদোষে প্রান চলে যেতে পারে তাঁদের। পাশাপাশি এই সেতু যদি ভেঙ্গে যায় তবে কোচবিহারের মূল প্রশাসনিক ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে ৩৫ টি গ্রাম ৷ জামালদহের সুটুঙ্গা সেতু পেরিয়ে রোজ কয়েক হাজার মানুষ সহ প্রচুর যান চলাচল করে। সেতু ভেঙ্গে পড়লে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে  এক বিরাট এলাকা জুড়ে।

স্থানীয়রা এই অভিযোগটি সংবাদ মাধ্যমকে জানালে টনক নড়ে প্রশাসনের। অভিযোগ পেয়ে তদন্তে আসেন পূর্ত দপ্তরের আধিকারিকরা। পূর্ত দপ্তরের সূত্রে জানা গেছে, অভিযুক্ত ব্যাক্তিকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন সহকারী বাস্তুকার।

এবিষয়ে বাবলু সাহা বলেন, আমি জমি জবরদখল করে অবৈধ নির্মান করিনি। জমিটি এক ব্যাক্তির কাছ থেকে কিনে নিয়ে দোকান ঘর বানিয়েছি। যদি আমার দোকান ভাঙ্গতে হয় তাহলে এখানে যে সমস্ত দোকান পূর্ত দপ্তরের জমিতে অবৈধ ভাবে গড়ে উঠেছে সেগুলিও ভেঙ্গে ফেলতে হবে।

পূর্ত দপ্তরের মাথাভাঙ্গার সহকারী বাস্তুকার সঞ্জয় দাস বলেন, ওই ব্যাবসায়ীর নামে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে দেখার পর আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। ওই ব্যাবসায়ীর বিরুদ্ধে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।