বিজেপির কর্মকাণ্ডে মদত দিচ্ছে পুলিশ, অভিযোগ উদয়নের

1098

দিনহাটা,৩০ অক্টোবর: রাজ্যের উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী রবীন্দ্র নাথ ঘোষের পর এবার দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক তথা তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক উদয়ন গুহের তোপের মুখে রাজ্য সরকারেরই পুলিশ।দীপাবলি উৎসবের সময়কাল থেকে জনসংযোগকে বাড়িয়ে তুলতে বাইক নিয়ে গ্রামগঞ্জে চষে বেড়াচ্ছেন কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ তথা বিজেপি নেতা নিশীথ  প্রামানিক।

এদিকে ২১শের বিধানসভাকে সামনে রেখে ফুল ফাইটের আবহ তৈরি হয়েছে গোটা রাজ্যজুড়ে। লোকসভা নির্বাচনে এই রাজ্যে নতুন শক্তির উত্থান হওয়ায় বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করেছে শাসক ও বিরোধীরা। তাই বিভিন্ন দলগুলি নানান নাম নিয়ে জনসংযোগ কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। ঘাসফুল যখন একদিকে দিদিকে বলো কর্মসূচীকে হাতিয়ার করে জনসংযোগের নতুন মাত্রা যোগ করছে তখন বসে নেই পদ্ম শিবিরও। তারাও মাঠে নেমেছিল সংকল্প যাত্রাকে হাতিয়ার করে। শুধু দলীয় কর্মসূচী নয় নেতা নেত্রীরা নিজেদের উদ্যোগেও শুরু করেছে জনগণ, জনতা, পাবলিক ও ভোটারদের সাথে সংযোগ রক্ষার কাজ। আর সেই লক্ষ্যেই সাংসদ তথা বিজেপির হেভিওয়েট নেতা নিশীথ প্রামানিকের বাইক যাত্রা। সাংসদের এই কর্মসূচীতে বেজায় চটেছেন কোচবিহার দিনহাটা কেন্দ্রের বিধায়ক উদয়ন গুহ।

তাঁর অভিযোগ, একজন সাংসদের এভাবে হুটার লাগিয়ে চলতে পারেন না। এটা সম্পূর্ণ আইনবিরুদ্ধ। কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামানিক তার গাড়িতে হুটার লাগিয়ে এবং তা বাজিয়ে শহর ও গ্রামে ঘুরে বেড়াচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি।

তবে প্রকাশ্যে সাংসদ আইন বিরুদ্ধ কাজ করলেও নিশ্চুপ পুলিশ প্রশাসন। তিনি আরও বলেন, এবিষয়টি নিয়ে পুলিশ কোনও ভূমিকা না নিলে তিনি নিজেও শহরে হুটার বাজিয়ে ঘুরবেন বলে হুঁশিয়ারি দেন। বুধবার রীতিমতো সাংবাদিক সন্মেলন  করে উদয়ন বাবু এই কথা বলেন। এদিন দিনহাটা পুরভবনে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন দিনহাটা পৌরসভার চেয়ারম্যান উদয়ন গুহ। তিনি বলেন, একটি বিশেষ রাজনৈতিক দলকে প্রশয় দিচ্ছেন পুলিশ। তাঁর ভাষায়, মুখ্যমন্ত্রীর কথাই সঠিক। পুলিশ ব্যালেন্স করে চলার চেষ্টা করছে। এভাবে কোনও প্রশাসন চলতে পারে না। এখানেই শেষ নয়, এর সাথে তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন পুলিশের একাংশের মদতেই বিজেপির এই বাড়বাড়ন্ত অভিযোগ তাঁর । পুলিশের গাড়িতে হামলার অভিযোগে যার বিরুদ্ধে পুলিশ স্বতঃপ্রণোদিত মামলা রুজু করলেও সাংসদের সাথে সেও বুক ফুলিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন, অথচ তাকে আটক করা হচ্ছে না ।

সম্প্রতি তুফানগঞ্জে তৃণমূল বিজেপির সংঘর্ষের ঘটনায় বিজেপি কর্মীদের পুলিশ মদত দিচ্ছে বলে অভিযোগ করে স্থানীয় পুলিশ আধিকারিককে বেজায় গালমন্দ করেন মন্ত্রী রবীন্দ্র নাথ ঘোষ। এরপরই উদয়নবাবুর টার্গেটে সেই পুলিশই। তবে কি তৃণমূল নেতৃত্বের নিশানায় এবার পুলিশই।

উদয়নবাবুর এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সাংসদ নিশীথ প্রামানিককের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।