ব্রাউন সুগার সহ অন্তঃরাজ্য পাচার চক্রের ৫ পাণ্ডাকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ

136

বিশ্বজিৎ মণ্ডল, মালদাঃ প্রায় সাতশো গ্রাম ব্রাউন সুগার সহ অন্তঃরাজ্য পাচার চক্রের এক মহিলা সহ পাঁচজন পাচারকারীকে গ্রেফতার করল মালদা জেলা পুলিশের একটি বিশেষ টিম। শনিবার বিকেলে মালদা ও মুর্শিদাবাদ জেলার তিন জায়গাই হানা দিয়ে পুলিশের ধৃতদের গ্রেফতার করে। সাতশো গ্রাম ব্রাউন সুগার সহ নগদ দশ লক্ষ ৭০ হাজার ৭৫০ টাকা উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, ধৃতরা হলেন কাসোর আলি, হাকিমুদ্দিন ও সাব্বির আলি। এদের বাড়ি মুর্শিদাবাদ জেলার লালগোলা এলাকায়। সানিউল শেখ ও ফারিদা বিবির বাড়ি মালদার কালিয়াচক থানার সুলতানগঞ্জ। গোপন সুত্রে খবর পেয়ে শনিবার বিকেলে মালদা জেলা পুলিশের একটি টিম হানা দেয় বৈষ্ণবনগর থানা এলাকায়। সন্দেহজনক একটি বুলেরো গাড়ি আটক করে। তল্লাশি চালিয়ে গাড়ি থেকে উদ্ধার করে ৬১৮ গ্রাম ব্রাউন সুগার। গাড়ির চালক কসোর আলিকে পুলিশ গ্রেফতার করে। জিঞ্জাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পারে কালিয়াচক থেকে ব্রাউন সুগারগুলি নিয়ে যাচ্ছিল। দীর্ঘ প্রায় ছয় মাস থেকে এই পাচার চক্রের সঙ্গে যুক্ত। মালদা থেকে মুর্শিদাবাদ হয়ে উড়িষ্যায় পাচার করে মাদক গুলি।

ধৃতের কাছ থেকে জানতে পেরে এদিনি পুলিশের একটি দল হানা দেয় মুর্শিদাবাদের মোড়গ্রাম ও অপরটিম হানা দেয় কালিয়াচকের সুলতানগঞ্জে। মোড়গ্রাম থেকে সাব্বির আলি ও হাকিমুদ্দিনকে গ্রেফতার করে। সুলতান গঞ্জে সানিউল শেখের বাড়িতে হানা দিয়ে পুলিশ উদ্ধার করে প্রায় ৬৩ গ্রাম ব্রাউন সুগার। এছাড়াও বাড়িতে হানা দিয়ে উদ্ধার করে প্রায় ১০ লক্ষ ৭০ হাজার ৭৫০ টাকা, ব্রাউন সুগারের প্রচুর প্যাকেট ও একটি ওজন করার যন্ত্র।

পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, নগদ টাকা গুলি ব্রাউন সুগার বিক্রির টাকা তাই পুলিশ বাজেয়াপ্ত করে। এছাড়াও আরো দুই জনের খোঁজে তদন্তে নেমেছে পুলিশ। জেলা পুলিশ সুপার অলোক রাজরিয়া বলেন, জেলা পুলিশের এটি একটি বড় সাফল্য। আন্তঃরাজ্য পাচার চক্রের মূল পান্ডা সহ পাঁচ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সোশাল মিডিয়াই বিজ্ঞপ্তি দেওয়ার পরেই এমন সাফল্য মিলছে। সাধারণ মানুষ আমাদের ভাল সাহায্য করছে।