৩ শতাধিক করোনা আক্রান্ত দেহ দাহ করে নিজেই করোনার বলি প্রবিন কুমার

935

ওয়েব ডেস্ক, ২১ মেঃ করোনা আবহে কোভিড যোদ্ধাদের আমরা প্রতিনিয়ত দেখে চলেছি যারা সামনের সারিতে দাড়িয়ে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করে চলেছে। তবে কিছু কিছু ঘটনা নাড়িয়ে দিয়ে যায় দেশবাসীকে। তেমনই এক হৃদয়বিদারক ঘটনা সম্প্রতি সামনে এসেছে। করোনার শিকার হলেন এমন এক যোদ্ধা যিনি ৩০০ এরও বেশী করোনা আক্রান্ত মৃতদেহ দাহ করেছেন।

ঘটনা ঘটেছে হরিয়ানার হিশার পউরসভায়। সেখানে কতৃপক্ষের তরফে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে মৃতদেহ দাহ করার ব্যবস্থা করা হয়। পৌর কর্পোরেশনের সেই দলের দায়িত্বে ছিলেন প্রবীণ কুমার নামে এক ৪৩ বছর বয়সী ব্যক্তি। তিনি নিজের জীবনের পরোয়া না করে এযাবৎ ওই কর্পোরেশনে করোনায় মৃত ৭৫০ জনের মধ্যে ৩০০-র অধিক দেহ দাহ করেছেন। ওই শহরে প্রতিদিন প্রায় ২০টি দেহ দাহ করা হয়। তার পুরো দায়িত্ব সামলেছেন প্রবীণ ও তার দল। শেষে সেই প্রবীণই আক্রান্ত হন মারণ ভাইরাসে।
প্রবীণ হিশার পৌর কর্পোরেশন কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতিও ছিলেন। কর্মচারী ইউনিয়নের মুখপাত্র সুনীল বেনিওয়াল জানান, অক্সিজেনের স্তর হ্রাসের পরে প্রবীনকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সূত্র মারফত এও জানা যাচ্ছে, প্রবীণ কুমারের পরিবার তিন ঘন্টা সরকারি হাসপাতালে শয্যার জন্য দৌড়াদৌড়ী করেছেন। তাও তার জন্য মেলেনি একটি শয্যাও। শেষ পর্যন্ত প্রবীনকে একটি বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছিল। আশ্চর্যের বিষয়, স্থানীয় প্রশাসনও এই করোনার হিরোর জন্য কোনও শয্যার ব্যবস্থা করতে পারেনি।

প্রবীণ কুমারের স্ত্রী ও দুই ছেলে রয়েছেন। একটি ছেলে এখনও পড়াশোনা করছে এবং অন্য ছেলে হিশার পৌর কর্পোরেশনে কাজ করে। প্রবীণের দুই ভাইও কর্পোরেশনের কাজ করে। করোনার এখনও দেশজুড়ে যে করুণ অবস্থা, তাতে শেষ চব্বিশ ঘণ্টায় হরিয়ানায় ৬৮১৮ টি মামলার সামনে এসেছে। রাজ্যে এযাবৎ মোট করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৭১৫০০৭ জন।