ভোট প্রচারে উসকানিমূলক মন্তব্য, আদালতে তলব গোখরোকে

250

ওয়েব ডেস্ক, ২১ মেঃ রাজ্যে ভোটপ্রচারে এসে উসকানিমূলক মন্তব্য দেওয়ার জন্য মামলা দায়ের হয়েছিল মিঠুন চক্রবর্তীর বিরুদ্ধ্যে। মানিকতলা থানায়। সেই মামলার শুনানিতেই এবার পুলিশের কাছে রিপোর্ট তলব করল শিয়ালদহ-র এসিজেএম আদালত। আগামী ১ জুন মামলার পরবর্তী শুনানি।

২১ এর বিধান্সভা নির্বাচনে মাইক হাতে অনেকেই অনেক বিরুপ মন্তব্যে জড়িয়েছিলেন। সেদিক থেকে পিছিয়ে ছিলেন না বিজেপির তারকা নেতৃত্ব মিঠুন চক্রবর্তি। বিধানসভা ভোটের আগে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। তারপর রাজ্যের একাধিক জায়গায় প্রচার করেছেন। কিন্তু সেখানেই বক্তব্য রাখতে গিয়ে তাঁর মুখে শোনা গিয়েছিল, “আমি জলঢোঁড়াও নই, বেলেবোড়াও নই। আমি জাত গোখরো, এক ছোবলে ছবি।” এইসব ডায়ালগ। পাশাপাশি শিতলখুচি কাণ্ডে ঘটনায় নাম না করে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই বাক্যবানে নিশানা করে বলেছিলেন এই বিজেপি নেতা। তিনি শিতলখুচি নিয়ে বলেন,, “ওখানে (শীতলকুচিতে) যা ঘটেছে তা খুবই দুঃখজনক। মৃতদের প্রণাম জানাই। কিন্তু কেন এই সব উসকানি দিয়ে চার জন মায়ের কোল খালি করে দেওয়া হল?” যদিও ভোটগণনার পর আর দেখা পাওয়া যায়নি মিঠুনের।

পরবর্তীতে ৬ মে মানিকতলায় থানায় এরুপ উস্কানিমূলক মন্তব্যের জেরে মিঠুন চক্রবর্তী, ও বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের নামে মামলা দায়ের হয়। বাংলা সিটিজেন্স ফোরামের পক্ষ থেকে মামলা করেন মৃত্যুঞ্জয় পাল। তাতে বলা হয়েছিল, ভোট প্রচারে মিঠুন চক্রবর্তীর এই বক্তব্যগুলি সাধারণ সিনেমার সংলাপ নয়। এই ধরনের বক্তব্য সন্ত্রাস এবং উত্তেজনায় প্ররোচনা দেয়। ফলে কোথাও সন্ত্রাস হলে তাঁর দায় মিঠুনেরও। তাঁদেরও গ্রেপ্তার করা হোক। সেই মামলায় এদিন বিচারক পুলিশের রিপোর্ট তলব করেন। পুলিশ এফআইআর করেছে কি না জানতে চান। পুলিশকে যথাযথ তদন্তেরও নির্দেশ দিয়েছেন। এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে ১ জুন। তার মধ্যেই রিপোর্ট জমা দিতে হবে পুলিশকে।