মালদা জেলা জুড়ে পালিত হল রাখিবন্ধন উৎসব

25

বিশ্বজিৎ মণ্ডল, মালদাঃ আজ পবিত্র রাখিবন্ধন উৎসব। প্রত্যেক বাঙালির কাছে এই দিনটি অতি পবিত্র দিন। আজকের দিনে দিদি, বোনেরা তাদের ভাই, দাদাদের হাতে রাখি বেঁধে দিয়ে মঙ্গল কামনা করে। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ব্রিটিশদের বাংলা ভাগের বিরুদ্ধে বাঙালিকে এক করতে এক ওপরের হাতে রাখি পড়ানোর মাধ্যমে বাঙালিকে এক করেছিলেন।

বাঙালির মননে, সংস্কৃতিতে তাই এই দিনটির একটা আলাদা ঐতিহ্য আছে। বর্তমান রাজ্য সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই রাজ্য জুড়ে সরকারি উদ্যোগে রাখি বন্ধন উৎসব পালন করছে। সেই মতো অতিমারীর আবহেও সরকারি উদ্যোগে রাজ্য জুড়ে দিনটি পালিত হল। ব্যতিক্রম নয় মালদা জেলাও। মালদা জেলার বিভিন্ন এলাকায় জনপ্রতিনিধি এবং প্রশাসনিক কর্তাদের উপস্থিতিতে রাখি বন্ধন পালন করা হল।

মালদা শহরের ফোয়ারা মোড়ে রাখিবন্ধন উৎসব উপলক্ষ্যে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে সাংস্কৃতিক দিবস পালন করা হল। সেখানে উপস্থিত ছিলেন জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র, পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া,মালদা জেলার তৃণমূল সভানেত্রী মৌসম বেনজির নূর সহ জেলা তৃণমূলের অন্যান্য নেতা,নেত্রীরা। করোনার আবহে একটু অন্যভাবে পালন হল এবারের রাখিবন্ধন। হাতে,হাতে রাখি পড়ানোর বদলে সকলকে ফেস মাস্ক দেওয়া হল। এদিনের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত অথিতিরা বক্তব্যের মাধ্যমে দিনটির তাৎপর্য্য তুলে ধরেন।

জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র আজকের দিনটির মাহাত্ম তুলে ধরেন। বঙ্গভঙ্গের প্রসঙ্গেও বলেন। সাথেই তিনি এই আবহে যে হাতে হাতে রাখি বেঁধে উৎসব পালন সম্ভব নয় সেই কথাও তুলে ধরেন।

মালদা জেলার পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া বলেন,রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এই দিনটিকে ভাই, বোনের উৎসব থেকে বাংলা ভাগের বিরুদ্ধে মানববন্ধনের উৎসবে পরিণত করেছিলেন। প্রত্যেক বছর পুলিশ কর্মীরা এক ওপরের হাতে রাখি বেঁধে এই ভাতৃত্বের দিনটি পালন করি। এবার স্বাভাবিক ভাবেই একটু অন্য ভাবে পালন করতে হচ্ছে।

তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভানেত্রী মৌসম বেনজির নূর বলেন,মমতা ব্যানার্জির নির্দেশে প্রতিবারের ন্যায় এবার আমরা দিনটি পালন করছি।করোনার কারণে ফেস মাস্ক বিতরণ করে দিনটি উদযাপন হল।

এদিকে মালদা শহরের পাশাপাশি হরিশ্চন্দ্রপুরেও পালন হল রাখিবন্ধন উৎসব। জেলা পরিষদের শিশু, নারী এবং ত্রাণ কর্মাধ্যক্ষ্যা মর্জিনা খাতুনের উপস্থিতিতে দিনটি পালন হল। সেখানে উপস্থিত ছিলেন হরিশ্চন্দ্রপুর থানার আইসি সঞ্জয় কুমার দাস এবং হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নং ব্লক সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক অনির্বান বসু। হরিশ্চন্দ্রপুর শহীদ মোড়ে দিনটি পালন করা হয়। মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর নির্দেশে সকলের মুখে মাস্ক পরিয়ে দিনটি পালন করা হয়।