সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়কে হেনস্থার অভিযোগ বদলি করা হল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও আইসিকে

540

ওয়েব ডেস্ক, ২৪ অক্টোবরঃ বদলি করে দেওয়া হল পুরুলিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চন্দ্রশেখর বর্ধনকে। ওই একই অভিযোগে বুধবার সরানো হয় খড়দহ থানার আইসি অনিমেষ সিংহরায়কে। কংগ্রেস নেতা সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়কে হেনস্থার ঘটনায় দিন কয়েক আগে তোলপাড় হয়েছিল রাজ্য।

সোশ্যাল মিডিয়ায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমালোচনা করার অভিযোগে তাঁকে গ্রেফতার করেছিল খড়দহ থানার পুলিশ। পরে পুরুলিয়ায় নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। জামিন পাওয়ার পরই পুলিশের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন কংগ্রেস নেতা সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই অবশেষে সরিয়ে দেওয়া হল অনিমেষ সিংহ রায় ও চন্দ্রশেখর বর্ধনকে। জানা গিয়েছে, খড়দহ থানার দায়িত্ব নেবেন বারাকপুরের আইসি সুজিত ভট্টাচার্য।

প্রসঙ্গত, গত ২৩ সেপ্টেম্বর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় মন্তব্য করেছিলেন প্রদেশ কংগ্রেসের অন্যতম মুখপাত্র সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই মন্তব্য কুরুচিকর ছিল এই অভিযোগ তুলে সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সাইবার ক্রাইম থানায় মামলা রুজু হয়। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ১৭ অক্টোবর রাতে সন্ময়বাবুর খড়দহের বাড়িতে হানা দেয় বারাকপুর কমিশনারেটের পুলিশ।

অভিযোগ,কোনও অপরাধ না জানিয়ে বাড়ির পোশাক পরিহিত অবস্থাতেই থানায় নিয়ে আসা হয় তাঁকে। থানায় নিয়ে আসার পর গ্রেপ্তার করা হয় তাঁকে। সেই মামলায় জামিনও পেয়ে যান সন্ময়বাবু। জামিন পাওয়ার পরই গ্রেপ্তারির ঘটনার বর্ননা দিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন সন্ময়বাবু। প্রকাশ্যে তিনি অভিযোগ করেন যে, থানায় নিয়ে যাওয়ার পর শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার করা হয় তাঁর উপর।

ওই ঘটনার প্রতিবাদ করতে গিয়ে নাম না করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের কড়া সমালোচনা করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ও। ট্যুইট করে তিনি জানিয়েছিলেন, “সংবিধান যে মত প্রকাশের অধিকার দিয়েছে তা হল এক স্বর্ণালী উপহার এবং যে কোনও ধরনের অসহিষ্ণুতাই গণতন্ত্রের পক্ষে ধ্বংসাত্মক।”

এই অভিযোগ প্রকাশ্যে আসতেই শুরু হয় বিতর্ক। পুলিশের ভূমিকায় অসন্তোষ প্রকাশ করেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। এরপরই বুধবার খড়দহ থানার আইসিকে সরানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় নবান্নের তরফে। হাওড়া পুলিশ কমিশনারেটে বদলি করা হয়েছে অনিমেষ সিংহ রায়কে। খড়দহ থানার দায়িত্ব নেবেন বারাকপুর থানার আইসি। একই অভিযোগে বৃহস্পতিবার বদলি করা হল পুরুলিয়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপারকে। পুলিশের তরফে একে রুটিন বদলি বলা হলেও সন্ময় কাণ্ডের জেরেই তাঁকে বদলি করা হয়েছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।