সরস্বতী পূজাই কোটাসুর সোনালী সংঘের থিম ‘ভারতের বৈদিক আশ্রমের পরিবেশ’

50

নিজস্ব সংবাদদাতা, বীরভূমঃ আজ বসন্ত পঞ্চমী। বাগ দেবীর আরাধনা চলছে ঘরে ঘরে। এই বাগ দেবীর আরাধনা প্রতি বছর নতুনত্ব থিমের মধ্যে দিয়ে বাগদেবীর আরাধনা করে থাকে বীরভূম জেলার অন্তর্গত ময়ূরেশ্বর এর কোটাসুর এর সোনালী সংঘ। এবারের তাদের থিম ‘ভারতের বৈদিক আশ্রমের পরিবেশ।’

বিগত ১৫ দিন ধরে সংঘের ছেলেরা নিজেরা হাত লাগান পূজা মণ্ডপ গড়ে তুলতে সঙ্গে কাজে হাত লাগান স্কুলের দুই শিক্ষক। কোটাসুর মদেনেস্বর মন্দির লাগোয়া প্রায় এক বিঘে জমির উপরে শিক্ষক পরেশ ভান্ডারীর পরিকল্পনায় ফুটিয়ে তোলা হয়েছে প্রাচীন ভারতের বৈদিক আশ্রমের পরিবেশ। তাদের এই থিমের মধ্যে দিয়ে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে, ভারতের বৈদিক পরিবেশ, আস্ত পাহাড়ের উষ্ণ ছোঁয়ায় নেমে আসছে ঝরনা, তারই মধ্যে গড়ে উঠেছে আশ্রম।

সেখানে সবুজ বট গাছের নিচে ছায়ায় বসে মুনি-ঋষিরা শিশুদের পাঠ দান করছেন। এবং তার পাশেই রয়েছে বাগদেবীর মন্দির। সেখানে যজ্ঞের মাধ্যমে দেবীর আরাধনা চলছে। কার্যত বলা যেতে পারে শস্য শ্যামলা, পাহাড়ের ঝরনা, মনোরম পরিবেশের মধ্যে দিয়ে শিশুদের পাঠদান এর চিত্র ফুটিয়ে তুলেছেন তারা।

সংঘের পক্ষ থেকে সঞ্জু ভান্ডারী, পরেশ ভান্ডারী, সুব্রত দাস, সুকান্ত রায়, অর্ক ব্যানার্জি, সোমনাথ রায়, বাবন রায়, সৌরভ কোনাই জানান, “আমরা প্রতি বছর নতুন নতুন ভবন কে নিয়ে পূজা মণ্ডপ গড়ে তুলি এই বছরও নতুনত্বের মধ্যে দিয়ে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছি।

এই বছর আমাদের পূজা ২০ বছরে পদার্পণ করলো। নৃত্য দিনের ব্যবহৃত বাঁশ, মাটি, চট ইত্যাদি দিয়ে গড়ে তুলেছি। সকলেই খুব পরিশ্রম করেছে। আমাদের এই বছরের থিম বৈদিক আশ্রমের পরিবেশ গড়ে তোলার কারণ, বর্তমান ইন্টারনেট এর যুগে ছাত্র-ছাত্রীরা জানে না আগের মুনি ঋষি দের সময় কি ভাবে পাঠ দান চলত, এই গুলো বর্তমানে ফুটিয়ে তোলার জন্যে আমাদের এই বছরের এই কৃতিম থিম গড়ে তুলেছি। আশাকরছি মানুষের ভিড় উপচে পড়বে।”