ক্লাস সিক্স-এর ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ৬০ বছরের কারাদণ্ড স্কুল শিক্ষকের

322

ওয়েব ডেস্ক, ৩০ জানুয়ারিঃ দেশ জুড়ে ধর্ষণের মত ঘটনায় সরব হয়েছেন সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে ছাত্র-যুব সমাজও। এই ধর্ষণ নিয়ে গর্জে উঠেছে সমাজ। প্রতিবাদেও নেমেছে অনেকে। এখনও কি নারী সুরক্ষিত নয়? প্রশ্ন উঠেছে অনেকের মনে। সাধারণত ধর্ষণ এবং নির্যাতন শব্দ দুটি সামনে এলেই মাথাতে স্বাভাবিক ভাবেই আসে নারী বা কন্যা সন্তান। এক নাবালিকা ছাত্রীকে যৌন নিগ্রহ করার অপরাধে এক স্কুল শিক্ষকে ৬০ বছরের কারাদণ্ডের সাঁজা শোনাল আদালত। দীর্ঘ ৬০ বছরের কারাদণ্ড আগে কোনও যৌন হেনস্থাকারীকে দেওয়া হয়নি বলেই মত বিশেষজ্ঞ মহলের।

প্রসঙ্গর, ২০১৭ সালে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে এই যৌন নির্যাতনের অভিযোগ ওঠে। নাবালিকা ছাত্রীর দাবি, একাধিকবার তাকে যৌন হেনস্থা করেছেন ফিরোজ নামের ওই শিক্ষক। যৌন হেনস্থার কথা কাউকে বললে তাঁর ফল ভালো হবে না বলে হুমকিও দিত ওই শিক্ষক। কিন্তু  অত্যচারের মাত্রা ক্রমশ বাড়তে থাকায় সহপাঠীদের ওই শিক্ষকের কাণ্ড খুলে বলে ওই সিক্সের ছাত্রী। এরপর কাউন্সেলিংয়ের সময় প্রকাশ্যে আসে লম্পট ফিরোদ খানের কুকীর্তি। এমনকি পড়ুয়াদের পাশাপাশি সহকর্মী শিক্ষকরাও ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানান। পকসো আদালতে চলে বিচার।

বিচারের শেষে বিচারক কে সুব্রাম্মা বলেন, একজন শিক্ষকের উচিত পড়ুয়া ও সমাজের কাছে রোল মডেল হয়ে ওঠা। আদর্শ হয়ে ওঠা। এই শিক্ষক কোনওরকম সহানুভূতির যোগ্য নয়।