ছ’মাস বাদে কাশ্মীরে চালু হল ২জি ইন্টারনেট মোবাইল পরিষেবা, বন্ধ সোশ্যাল মিডিয়া

191

ওয়েব ডেস্ক, ২৫ জানুয়ারিঃ প্রায় ছ’মাস বাদে জম্মু ও কাশ্মীরে ইন্টারনেট পরিষেবা চালুর সিদ্ধান্ত নিল প্রশাসন। শুক্রবার মধ্যরাত থেকেই এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়েছে। যদিও ৩জি নয়, আপাতত ২জি পরিষেবা চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে ইন্টারনেট পরিষেবা থাকবে সীমাবদ্ধতার সাথে। ইন্টারনেট পরিষেবা কেবলমাত্র “পরিচ্ছন্ন তালিকাভুক্ত” ওয়েবসাইটের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে এবং সোশ্যাল মিডিয়া সাইটগুলি এখানকার বাসিন্দাদের সীমার বাইরে থাকবে।

এই অঞ্চলে প্রসারিত ইন্টারনেট সংযোগ তুলনামূলকভাবে ধীরগতিতে অর্থাৎ ২জি প্রযুক্তির উপর নির্ভর করবে। পোস্টপেইডের পাশাপাশি প্রিপেইড সিম কার্ডে নেট পরিষেবা পাওয়া যাবে। এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে যে, বিধিনিষেধের উপর শিথিলতা পুনরায় পর্যালোচনা করার জন্য ৩১ জানুয়ারি আবার নতুন কিছু নিয়ম আসতে পারে।

গত সপ্তাহে কুপওয়ারা ও বারামুল্লা জেলায় ২জি মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা চালু করা হয়। কাশ্মীরে কয়েকটি সরকারি অফিস, হাসপাতাল এবং হোটেলে গত সপ্তাহে ব্রডব্যান্ড পরিষেবা চালু হয়। এর আগে সুপ্রিম কোর্টও জানায় যে শান্তিরক্ষার নামে কাশ্মীরে অনন্তকাল ধরে ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখা যাবে না।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ৫ অগাস্ট জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের পর থেকেই কাশ্মীরে বন্ধ ছিল ইন্টারনেট পরিষেবা। সেই ইন্টারনেট পরিষেবা মৌলিক অধিকারের মধ্যে পড়ে বলে জানাল সুপ্রিম কোর্ট। শিক্ষা, চিকিৎসা সহ অন্যান্য জরুরি পরিষেবার মতোই ইন্টারনেট পরিষেবা জরুরি বলে মন্তব্য করে শীর্ষ আদালত। নতুন করে যাতে উত্তেজনা না ছড়ায়, পরিস্থিতি যাতে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে না যায়, তার জন্য গোটা উপত্যকাজুড়ে বন্ধ করা হয়েছিল ইন্টারনেট পরিষেবা। শুক্রবার জম্মু ও কাশ্মীর প্রশাসনের স্বরাষ্ট্র বিভাগের জারি করা আদেশ অনুযায়ী, “এর দ্বারা এটি নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে যে নিম্নোক্ত বিধি নিষেধের সাথে জম্মু ও কাশ্মীরের সমস্ত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জুড়ে স্থির রেখার মাধ্যমে মোবাইল ডেটা পরিষেবা এবং ইন্টারনেট পরিষেবার অনুমতি দেওয়া হবে। পূর্বোক্ত নির্দেশটি ২০২০ সালের ২৫ জানুয়ারি থেকে কার্যকর হবে এবং এতেিবলা থাকবে “আগে সংশোধিত না হলে ২০২০ সালের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত বজায় থাকবে।”