বিজেপির রাজ্য যুব মর্চা সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর শুভেন্দুর বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগ্রেদিলেন সৌমিত্র খাঁ

141

ওয়েব ডেস্ক, ৭ই জুলাইঃ রাজ্যে বিজেপির শীর্ষনেতাদের মধ্যেই একজন সৌমিত্র খাঁ। বুধবার আচমকাই যুব মর্চা সভাপতি পদ থেকে ইস্তাফা দেন তিনি। এরপরই দিলীপ ঘোষ ও শুভেন্দু অধিকারীকে তীব্র আক্রমণ করেন সৌমিত্র। তিনি বলেন, “দল এককেন্দ্রিক হয়ে যাচ্ছে। সর্বভৌমতা নেই, দল একমুখী হয়ে যাচ্ছে। শুধু অধিকার দখল ও অধিকারী হাওয়ার লরাই চলছে। বারবার দিল্লি গিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের ভুল বোঝাচ্ছেন একজন।”

শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে বিষ্ণুপুরের সাংসদ আরও বলেন, “বিরোধী দলনেতা নিজেকে বিরাট করে জাহির করছেন, যখন তৃণমূলে ছিলেন তখনও নিজেকে বিশাল কিছু মনে করতেন। এখন অন্য দলে গিয়েও নিজেকে অনেক বড়ো মনে করছেন। মনে হচ্ছে দলে শুধু ওঁরই অবদান রয়েছে। আমাদের কোনও ত্যাগ নেই। নতুন নেতা হঠাৎ করে এসে যেভাবে দিল্লির নেতাদের ভুল বোঝাচ্ছে, তাতে গোটা দল একটা জেলার মধ্যে চলে আসছে।”

সৌমিত্র খাঁ বলেন, “ভোটের একমাস আগে এসে উনি সব চোর, চিটিংবাজকে জয়েন করিয়েছেন। সেই সময় থেকেই অনেক কিছুই আমার ভাল লাগেনি। স্বাভাবিকভাবেই প্রতিবাদ করেছিলাম। সেই কারণেই আমাকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এখনও যদি না বলি তবে আর কবে বলব? এখন না বললে কোনওদিন বোঝাতে পারব না। তাই এখন বললাম। ভুল যদি হয়, যে কোনও পরিস্থিতিতে আমি প্রতিবাদ করবই।” ব্যক্তিগত স্বার্থে বিজেপিতে এসেছেন শুভেন্দু অধিকারী, ইঙ্গিতে এমনই অভিযোগ করে সৌমিত্র বলেছেন, “আমি কোনও স্বার্থ নিয়ে বিজেপিতে আসিনি। আমার কোনও দাদা, ভাইয়ের জন্য কিছু করার নেই। আজও আমার একতলা বাড়ি।” দলের প্রথম সারির নেতার এহেন মন্তব্যে অস্বস্তিতে বিজেপি। বুধবারই সন্ধেয় বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছে দলের তরফে।